সোনার বারসহ আটক ব্যক্তির ১৪ বছর জেল

আপডেট: 12:06:21 20/09/2021



img

স্টাফ রিপোর্টার: আট বছর আগে যশোরে সোনার ১২টি বারসহ আটক মোক্তার আলী নামে এক ব্যক্তিকে ১৪ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেছেন আদালত।
রোববার সিনিয়র দায়রা জজ ও সিনিয়র স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল জজ আদালতের বিচারক মো. ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিক এই রায় ঘোষণা করেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পাবলিক প্রসিউকিটর (পিপি) এম ইদ্রিস আলী।
দণ্ডপ্রাপ্ত মোক্তার আলী শার্শা উপজেলার মৈশাডাঙ্গা বারোপোতা গ্রামের বাসিন্দা। রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৩ সালে ১২ সেপ্টেম্বর ২৬ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের (বিজিবি) সদ্যসরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন বরিশাল থেকে ছেড়ে আসা বেনাপোলগামী যাত্রীবাহী জিএম এন্টারপ্রাইজের একটি বাসে (ঢাকা মেট্রো-ব-১১-১৩১৭) সোনা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ভারতে পাচারের লক্ষ্যে। খবর পেয়ে দুপুর একটার দিকে যশোর-মাগুরা সড়কের কিসমত নওয়াপাড়ায় রজনীগন্ধা পেট্রোল পাম্পের সামনে অবস্থান নেন বিজিবি সদস্যরা। পরে বাসটি সেখানে এলে তল্লাশি করা হয়। এক পর্যায়ে মোক্তার আলী নামে এক যাত্রীর জুতার ভেতর থেকে বিশেষ কায়দায় রাখা ১২টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়। একইসাথে ওই যাত্রীকে আটক করা হয়।
এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫-বি (১) (এ) ধারায় কোতয়ালি থানায় মামলা করেন বিজিবির সুবেদার বাদশা মিয়া। এ মামলার তদন্ত শেষে মো. মোক্তার আলীকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম।
মোক্তার আলীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাকে উল্লিখিত কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড প্রদান করেন।

আরও পড়ুন