বাড়ছে বাংলাদেশ-ভারত যাতায়াত

আপডেট: 03:59:22 20/09/2021



img
img

স্টাফ রিপোর্টার, বেনাপোল (যশোর): ভারত গমনে শর্ত শিথিল করায় বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন দিয়ে যাত্রী গমন বেড়েছে। গত ৮ সেপ্টেম্বর প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন তুলে নেওয়ার পর ভারতে যাত্রী যাওয়া বাড়ে।
এছাড়া ভারত থেকে আসা যাত্রীদেরও বাংলাদেশ মিশনের অনুমোদনের শর্ত তুলে নেওয়ার প্রভাব পড়েছে যাতায়াতের ক্ষেত্রে। তবে উভয় রাষ্ট্র থেকে যাত্রীদের করোনা নেগেটিভ সনদের শর্ত বহাল রয়েছে।
বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে দেশের সবচেয়ে বড় স্থল ইমিগ্রেশন বেনাপোল দিয়ে যাত্রী চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এরপর ‘শুধু চিকিৎসার জন্য যাত্রীরা বিশেষ অনুমোদন নিয়ে যেতে পারবেন’ বলে উভয় দেশের সরকার অনুমোদন দেয়। কিছুদিন পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের অনুমোদন নিয়ে মেডিকেল ভিসা এবং বাণিজ্যিক ভিসার অনুমোদন দেওয়া হয়। এরপর যাত্রীরা নানা শর্ত নিয়ে চলাচলে বিড়ম্বনায় পড়েন। তখন থেকে যাত্রী হ্রাস পায় বহির্গমন ও আন্তঃগমনে। সব মিলে দুইশয়ের নিচে নেমে যায় যাত্রী চলাচল। স¤প্রতি শর্ত শিথিলের কারণে এ পথে প্রতিদিন সব মিলিয়ে সহস্রাধিক যাত্রী চলাচল করছেন।
গত একসপ্তাহে ভারত ও বাংলাদেশে আন্তঃ ও বহির্গমনে ছয় হাজার ৮৩৪ জন যাত্রী চলাচল করেছেন। এরমধ্যে ১৩ সেপ্টেম্বর ৬২৯ জন, ১৪ সেপ্টেম্বর ৮৪৫ জন, ১৫ সেপ্টেম্বর ৫২৯ জন, ১৬ সেপ্টেম্বর এক হাজার ২২৪ জন, ১৭ সেপ্টেম্বর এক হাজার ২২৭ জন, ১৮ সেপ্টেম্বর এক হাজার ২০২ জন এবং ১৯ সেপ্টেম্বর এক হাজার ১৭৮ জন ভারতীয় ও বাংলাদেশি যাত্রী যাতায়াত করেছেন।
করোনাভাইরাসের কারণে ভারত থেকে ফেরত আসা যাত্রীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন শুরু হয় গত ২৬ এপ্রিল। এর আগেও কোয়ারেন্টিন চালু ছিল গত বছরের জুলাই মাস থেকে। নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকা-খাওয়ার শর্ত এবং ভারত থেকে ফেরার সময় সেদেশে বাংলাদেশ মিশন থেকে বিশেষ অনুমোদন নেওয়ার নিয়ম করায় প্রতিবেশী দেশ দুটিতে জনযাতায়াত কার্যত বন্ধই হয়ে গিয়েছিল। দেখা যায়, মুমূর্ষু অথবা গুরুতর রোগে আক্রান্তরাই শুধু ভারত যাতায়াত করছেন।
বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন ওসি আহসান হাবিব বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব তুলনামূলক কমে যাওয়ায় উভয় দেশ শর্ত শিথিল করায় গত এক সপ্তাহ ধরে যাত্রী গমনাগমন বেড়েছে। ট্যুরিস্ট ভিসা ছাড়লে হয়তো আগের মতো দুই দেশ থেকে আসা যাওয়া যাত্রী দৈনিক দশ হাজারের কাছাকাছি যাবে।
বেনাপোল কাস্টমস সূত্র জানায়, ভারত-বাংলাদেশ মেডিকেল, বিজনেস, এমপ্লয়ার, স্টুডেন্ট ভিসার পাশাপাশি টিএফ ভিসার যাত্রীও চলাচল করছেন। হয়তো খুব তাড়াতাড়ি উভয় রাষ্ট্র ভ্রমণ ভিসা চালু করবে। তখন যাত্রী সংখ্যা বেড়ে আগের মতো হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন