‘মানুষের হৃদয় থেকে জিয়ার নাম মুছা যাবে না’

আপডেট: 09:45:55 14/02/2021



img

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেছেন, ‘আপনি স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করবেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলবেন, আর স্বাধীনতার মহান ঘোষক মুক্তিযুদ্ধের সশস্ত্র সংগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের অবদানকে অস্বীকার করবেন। তা হতে পারে না। এটি নিছক ছেলেখেলা ছাড়া আর কিছু নয়। জনগণ কোনোদিনই তা মেনে নেবে না। শাহজাহান খান শহীদ জিয়াউর রহমানকে নিয়ে কী বললো না বললো, তাতে কিছু যায় আসে না। কারণ ১৬ কোটি মানুষের হৃদয়ে গ্রথিত শহীদ জিয়াউর রহমানের নাম।'
রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) যশোর জেলা বিএনপি আয়োজিত সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বীরউত্তম খেতাব বাতিলের 'সরকারি ষড়যন্ত্রের' প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।
কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অনিন্দ্য ইসলাম অমিত আরো বলেন, 'লগি বৈঠার মধ্য দিয়ে দেশ স্বাধীন হয়নি। পৃথিবীর বুকে পাঁচটি সশস্ত্র সংগ্রামের মধ্য দিয়ে অর্জিত স্বাধীন দেশের মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। শহীদ জিয়াউর রহমান, স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে সশস্ত্র বাহিনী, দেশের ছাত্র, কৃষক, যুবকদের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সশস্ত্র সংগ্রামের মধ্য দিয়ে দেশকে স্বাধীন করেন। মুক্তিযুদ্ধকালীন সব সেক্টরের বাহিনী প্রধানদের ভারতে থাকার সুযোগ থাকলেও তিনি তা করেননি। বরং মুক্তিকামী বাঙালিদের সাথে নিয়ে রণাঙ্গনে যুদ্ধ করেছেন। মুক্তিযুদ্ধে তার অবদানের স্বীকৃতি মুক্তিযুদ্ধকালীন অস্থায়ী সরকারের প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ ও ভারত সরকার দিয়ে গেছে।'
অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরের দ্বারপ্রান্তে এসে আজও এ দেশের জনগণ প্রতিনিয়ত জীবন-জীবিকার জন্যে লড়াই করছে। সাধারণ মানুষের স্বাভাবিক মৃত্যুর নিশ্চয়তা, ভোটাধিকার আইনের শাসন, মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য জনগণের দল বিএনপি লড়াই করে যাচ্ছে। যতদিন না সেই অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে ততদিন তারা রাজপথ ছেড়ে যাবে না।
জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবুর সভাপতিত্বে ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য  অ্যাডভোকেট হাজী আনিছুর রহমান মুকুলের পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুনীর আহমেদ সিদ্দিকী বাচ্চু। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য গোলাম রেজা দুলু, আব্দুস সবুর মন্ডল, আব্দুস সালাম আজাদ, নগর বিএনপির সভাপতি মারুফুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক খায়রুল বাশার শাহীন প্রমুখ।

আরও পড়ুন