হত্যার পর মৃতদেহে বিএসএফের গুলি!

আপডেট: 11:11:40 03/11/2019



img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) সদস্যরা আব্দুর রহিম (৩৫) নামে এক বাংলাদেশিকে হত্যা করেছে। অভিযোগ, পিটিয়ে হত্যার পর মৃতদেহে গুলি চালিয়েছে বিএসএফ সদস্যরা।
এ ঘটনাটি ঘটেছে রোববার ভোররাতে মহেশপুর উপজেলার পলিয়ানপুর সীমান্তের ওপারে ভারতের নারায়ণপুর গ্রামের রাস্তায়।
নিহত আব্দুর রহিম মহেশপুর উপজেলার বাউলি গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেমের ছেলে বলে জানান নেপা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শাহাবুল ইসলাম।
নেপা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সামছুল আলম মৃধা বলেন, ‘আমি বিকেল চারটার সময় জানতে পারলাম বাউলি গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেমের ছেলে আব্দুর রহিম ভারতে গরু আনতে গিয়েছিল। সেদেশের নারায়ণপুর ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা তাকে গুলি করে হত্যা করেছে।’
মহেশপুর থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) আমানউল্লা হক বলেন, ‘সীমান্ত এলাকায় হত্যার কোনো খবর আমার কাছে নেই।’
তবে বিজিবি ঝিনাইদহের খালিশপুর ৫৮ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল কামরুল আহসান বিডিনিউজকে জানিয়েছেন, তারা জানতে পেরেছেন চার বাংলাদেশি রোববার ভোররাতে সীমান্ত পেরিয়ে গরু আনতে ভারতে গিয়েছিলেন। তারা ৬০ নম্বর মেইন পিলার থেকে ৪০০ গজ ভেতরে নদীয়া জেলার হাবাসপুর ক্যাম্পের বিএসএফ টহল দলের সামনে পড়ে যান। বিএসএফের তাড়া খেয়ে তিনজন পালিয়ে আসেন। ধরা পড়ে বিএসএফের পিটুনিতে মারা যান রহিম। পরে তার মৃতদেহে গুলি চালায় বিএসএফ।
লে. কর্নেল কামরুল জানান, নদীয়া জেলার ধানতলা থানা পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নিয়ে গেছে কৃষ্ণনগর হাসপাতাল মর্গে। লাশ ফেরত আনার চেষ্টা করছে বিজিবি।

আরও পড়ুন