সেই সুরাইয়ার পাশে ইউএনও তানিয়া

আপডেট: 07:22:54 08/06/2020



img

বাঘারপাড়া (যশোর) প্রতিনিধি : এবার সেই গরিব মেধাবী শিক্ষার্থী সুরাইয়ের পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও তানিয়া আফরোজ।
সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানিয়া আফরোজ উৎসাহ যোগাতে সুরাইয়ার বাড়িতে গিয়ে তার খোঁজখবর নেন। এ সময় সুরাইয়ার লেখাপড়া চালিয়ে নিতে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।
বাঘারপাড়া উপজেলার নারিকেলবাড়িয়া গ্রামের হতদরিদ্র ভ্যানচালক মনিরুল শিকদারের মেয়ে সুরাইয়া খাতুন নারিকেলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পায়। গত ৪ জুন পাঠকপ্রিয় নিউজপোর্টাল সুবর্ণভূমিতে আঁধার ঘরে চাঁদের আলো সুরাইয়া শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এই প্রতিবেদন দেখে সুরাইয়ার লেখাপড়ার সার্বিক দায়িত্ব নেন যশোর জেলা পরিষদ সদস্য ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার বিপুল ফারাজী
সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ইঞ্জিনিয়ার বিপুল ফারাজী চিকিৎসাধীন থাকায় সুরাইয়ার মায়ের সঙ্গে ফোনে কথা বলে এ ঘোষণা দেন তিনি। কলেজে ভর্তি, প্রাইভেট পড়ার খরচ,  জামাকাপড়, বই-খাতা-কলমসহ লেখাপড়ার যাবতীয় খরচ বহন ও সব ধরনের সহযোগিতার কথা উল্লেখ করেন তিনি। ঘোষণা অনুযায়ী সোমবার সুরাইয়াকে স্থানীয় নারিকেলবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজে মানবিক বিভাগে ভর্তি করানো হয়। বিপুল ফারাজীর প্রতিনিধি হিসেবে স্থানীয় নারিকেলবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা ও প্রতিবেশী রিয়াজ মানিক সুরাইয়াকে সঙ্গে নিয়ে কলেজে ভর্তি করান।
এদিকে, সোমবার দুপুরে বাঘারপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানিয়া আফরোজ উৎসাহ যোগাতে সুরাইয়ার বাড়িতে গিয়ে তার খোঁজখবর নেন। এ সময় সুরাইয়ার লেখাপড়া চালিয়ে নিতে তার বাবা-মাকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি। লেখাপড়া শেষ না করে বিয়ের ব্যবস্থা না করার পরামর্শও দেন ইউএনও তানিয়া আফরোজ।
তিনি সুরাইয়াকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘অনেক বাধা আসবে। মেয়েদের অনেক চ্যালেঞ্জ থাকে। সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে এগিয়ে যেতে হবে। অহংকার করা যাবে না। চাহিদা থাকতে হবে সীমিত।’
এ সময় সহযোগিতার অংশ হিসেবে সুরাইয়ার হাতে নগদ কিছু টাকা তুলে দেন ইউএনও।
পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানিয়া আফরোজ বলেন, ‘হতদরিদ্র পরিবারের মেয়ে সুরাইয়া ভালো রেজাল্ট করায় তাকে উৎসাহ দিতে তার বাড়ি গিয়েছি। লেখাপড়া চালিয়ে নিতে তাকে সব ধরনের সহযোগিতা করবো। অল্প বয়সে বাবা-মা যাতে বিয়ে না দেয়-সে ব্যাপারে বলে এসেছি। পাশাপাশি অভিভাবকদের বলেছি যোগাযোগ রাখতে।’
সুরাইয়ার পাশে থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ায় বিপুল ফারাজীকে ধন্যবাদ জানান উপজেলা প্রশাসনের এই প্রধান কর্মকর্তা।
মেয়েটির ভ্যানচালক বাবা ইউএনও তানিয়া আফরোজ, জেলা পরিষদ সদস্য বিপুল ফারাজীসহ যারা সুরাইয়ার পাশে থাকার কথা বলেছেন, তাতের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

আরও পড়ুন