লোহাগড়ায় ভুল চিকিৎসায় শিশু মৃত্যুর অভিযোগ

আপডেট: 06:56:35 19/11/2020



img

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি : নড়াইলের লোহাগড়া শহরের একটি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় এক শিশু মারা যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) সকালে মারিয়া নামে ১১ মাস বয়সী ওই শিশুটি মারা যায়। সে উপজেলার লংকারচর গ্রামের বকুল শেখের মেয়ে।
মৃত শিশুর স্বজনরা জানিয়েছেন, মারিয়া দীর্ঘদিন ধরে নিউমোনিয়ায় ভুগছিল। চিকিৎসার জন্য বৃহস্পতিবার সকালে তাকে লোহাগড়া শহরের ডাক্তার প্রবীরকুমার দে শ্যামের চেম্বার কাম ক্লিনিকে নিয়ে ডাওয়া হয়। এসময় ডাক্তার প্রবীরকুমার দে শ্যাম ওই শিশুকে ইনজেকশন দেওয়ার জন্য লক্ষ্মীপাশা এলাকার মোর্শেদা ক্লিনিকে পাঠান। মোর্শেদা ক্লিনিকের একজন নার্স তড়িঘড়ি করে ওই শিশুকে একটি ইনজেকশন প্রয়োগ করেন। এরপর বিকেল তিনটার দিকে ওই শিশুর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে মোর্শেদা ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের পরামর্শে আবার ডাক্তার প্রবীরকুমার দে শ্যামের চেম্বারে নেওয়া হয়। এসময় চিকিৎসক শিশুটিকে চিকিৎসা না দিয়ে একটি ব্যবস্থাপত্র ধরিয়ে দেন।
তারা আরো জানান, মারিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক মো. শরিফুল ইসলাম জানান, স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসার আগেই শিশুটি মারা গেছে।
জানতে চাইলে চিকিৎসক প্রবীরকুমার দে শ্যাম শিশু মৃত্যুর অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমি তাকে খুলনা শিশু হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দিয়েছি। এরপর ওই শিশুর অভিভাবকরা কী করেছে আমি জানি না।’
এ ব্যাপারে মোর্শেদা ক্লিনিকের মালিক কাজী মুরাদ হোসেনের বক্তব্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি।

আরও পড়ুন