লোহাগড়ায় গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট: 04:13:36 09/08/2020



img
img

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি : লোহাগড়ায় এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ মামলার প্রধান আসামি রিপন মোল্যা (৩৭) নামে এক ব্যক্তিকে রোববার সকালে গ্রেফতার করেছে।
এজাহারে অভিযোগ করা হয়েছে, উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়নের কুমড়ি গ্রামের মৃত ছব্দার মোল্যার ছেলে মাদক ব্যবসায়ী ও দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী রিপন মোল্যা, মৃত মওলা মোল্যার ছেলে ওহিদুল মোল্যা এবং তালবাড়িয়া গ্রামের আলিমুল মোল্যার ছেলে নূরুন্নবীসহ অজ্ঞাত ৪-৫ জনের একদল দুর্বৃত্ত ওই গ্রামের এক দম্পতিকে পারিবারিক বিরোধ মীমাংসার কথা বলে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায়। পথে স্বামীকে হাত-পা ও মুখ বেঁধে মারপিট করে তারা। এরপর পাশের আখড়াবাড়ীয়া গ্রামের একটি বাঁশবাগানে নিয়ে মুখ বেঁধে এক সন্তানের জননী ওই গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষকরা গভীররাতে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় স্বামী-স্ত্রীকে তাদের বাড়ির পাশে ফেলে রেখে যায়। প্রতিবেশিরা তাদের উদ্ধার করে বাড়িতে দিয়ে যায়।
অভিযোগ করা হয়েছে, ধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ না করার জন্যও হুমকি দিয়ে নির্যাতিত পরিবারকে গৃহবন্দি করে রাখে দুর্বৃত্তরা। বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় দুুদিন পর স্বামী ও স্ত্রী দুজনকে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই দিনই নড়াইল সদর হাসপাতালে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা হয়েছে।
এ ঘটনায় গৃহবধূর বাবা বাদী হয়ে শনিবার তিনজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪-৫ জনের নামে লোহাগড়া থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে রোববার সকালে রিপন মোল্যাকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে।
লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, গ্রেফতার রিপনের বিরুদ্ধে সাতটি মাদক, একটি খুন এবং দুটি সংঘর্ষের মামলা রয়েছে।

আরও পড়ুন