লোহাগড়ার টনিক হত্যারহস্য ‍উদ্ঘাটনের দাবি

আপডেট: 08:26:16 19/10/2019



img

স্টাফ রিপোর্টার : নড়াইলের লোহাগড়ার আমিরুল ইসলাম টনিক হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনের দাবি করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। সংস্থাটি জানিয়েছে, হত্যাকারী মো. সজীব খানকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করেছে যশোর পিবিআই।
লোহাগড়া উপজেলার তালবাড়িয়া গ্রামে তার নিজ বসতবাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে সজীবকে। আজ শনিবার ভোররাতে নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার তালবাড়িয়া গ্রামে এই অভিযানটি চালানো হয়। সজীব ওই গ্রামের সবুর খানের ছেলে।
পিবিআই যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম কে জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, লোহাগড়া উপজেলার কোলা দিঘলিয়া গ্রামে মো. নুরুল ইসলাম শেখের ছেলে আমিরুল ইসলাম টনিক ২০১৬ সালে ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাতে নিজ ঘরে ঘুমিয়ে ছিল। ওই রাতে দুর্বৃত্তরা বাড়ির গ্রিল কেটে ঘরে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে টনিকের মাথায় আঘাত করে। রাতেই তাকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে ডাক্তাররা তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করেন। অবস্থার আরো অবনতি হলে তাকে ঢাকায় জাপান-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালে নিয়ে যান স্বজনরা। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৭ ফেব্রয়ারি তার মৃত্যু হয়।
এঘটনায় নিহতের ভাই আবু সাইদ শেখ পরদিন ১৮ ফেব্রুয়ারি লোহাগড়া থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় আসামি করা হয় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের। পরে মামলাটির তদন্তভার গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন। পিবিআই প্রযুক্তি ব্যবহার করে নিশ্চিত হয়, এই হত্যায় সজীব জড়িত। এরপর আজ সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে টনিক হত্যায় নিজের সম্পৃক্ততা স্বীকার করেছে সজীব, বলছেন পিবিআই কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর।

আরও পড়ুন