লবণ-গুজব : পাইকগাছায় দুই ব্যবসায়ী আটক

আপডেট: 12:31:02 20/11/2019



img

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : পাইকগাছায় লবণ সংক্রান্ত গুজব প্রতিরোধে অভিযান পরিচালনাসহ জনসচেতনতামূলক বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ। লবণের অতিরিক্ত দাম নেওয়ায় দুই ব্যবসায়ীকে আটকও করা হয়েছে।
মঙ্গলবার বিকেলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এলাকায় লবণ সংক্রান্ত গুজব ছড়িয়ে পড়ে। দেশের বিভিন্ন স্থানে লবণের দাম বেড়েছে- এমন গুজবে সাধারণ মানুষ লবণ কিনতে ভিড় জমায় দোকানে। অনেক প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়ী এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে হাঁকিয়ে দেন চড়া দাম। অনেককেই প্রয়োজনের চেয়ে বেশি লবণ কিনতে দেখা যায়।
বিষয়টি নজরে এলে প্রশাসন ও পুলিশের পক্ষ থেকে তখনই পদক্ষেপ নেওয়া হয়। বিশেষ করে প্রশাসনের বিভিন্ন ফেসবুক আইডিতে ‘গুজবে কান না দিতে’ আহ্বান জানানো হয়। পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে পুলিশি ব্যবস্থা নেওয়া হয়।
সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুলিয়া সুকায়নার নেতৃত্বে শহরের বিভিন্ন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে যান প্রশাসনিক কর্মকর্তারা। মতবিনিময় করার মাধ্যমে সচেতন করা হয় ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষকে।
এ সময় ইউএনও জুলিয়া সুকায়না জানান, দেশে লবণের ঘাটতি নেই। পর্যাপ্ত পরিমাণে লবণ মজুদ রয়েছে। একটি মহল সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে সামাজিক যোগাযোগ (ফেসবুক) এর মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত ও ব্যবসায়ীদের অধিক মুনাফা আয়ের সুযোগ করে দিয়েছে। এ ধরনের গুজবে কান দিয়ে কেউ অতিরিক্ত দামে লবণ কেনা-বেচা এবং কৃত্রিম সংকট তৈরি করবেন না। এ নির্দেশনা উপেক্ষা করে আইনপরিপন্থী কিছু করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, অতিরিক্ত দাম নেওয়ার অভিযোগে পৌর সদরের বৃষ্টি এন্টারপ্রাইজের মালিক ও বাতিখালী গ্রামের মৃত ফজর আলী গাজীর ছেলে সাত্তার গাজী (৪৫) এবং আশা স্টোরের মালিক কড়–লিয়া গ্রামের মৃত প্রফুল্ল সানার ছেলে মৃত্যুঞ্জয় সানা (৪২)-কে আটক করা হয়েছে। কেউ অতিরিক্ত দাম নিলে এবং কোনো ক্রেতা প্রয়োজনের বেশি লবণ কিনে কৃত্রিম সংকট তৈরি করার চেষ্টা করলে আইনের আওতায় আনা হবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি চেয়ারম্যান কেএম আরিফুজ্জামান তুহিন, ষোলআনা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মোর্তজা জামান আলমগীর রুলু, কাউন্সিলর শেখ মাহবুবুর রহমান রনজু, কামাল আহমেদ সেলিম নেওয়াজ, পৌর সচিব লিয়াকত হোসেন, ব্যবসায়ী মনোহরচন্দ্র সানা ও হাঁটার সাথী সংগঠনের কর্মকর্তারা।

আরও পড়ুন