যশোরে ইউপি চেয়ারম্যানের জেল-জরিমানা

আপডেট: 07:38:24 14/10/2019



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে চেক ডিজঅনার মামলায় যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার হাজিরবাগ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিন্টুকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে তাকে তিন লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।
রোববার যুগ্ম দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক শিমুলকুমার বিশ্বাস মামলাটির রায় ঘোষণা করেন।
সাজাপ্রাপ্ত আতাউর রহমান মিন্টু ঝিকরগাছা উপজেলার মাটিকুমড়া গ্রামের মৃত আলতাফ হোসেনের ছেলে।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, আসামি আতাউর রহমান মিন্টু জনপ্রতিনিধি হওয়ায় ইস্তা গ্রামের নুর-উন-নবীর ছেলে খায়রুল ইসলাম তার কছে একটি চাকরি চান। চেয়ারম্যান তাকে সরকারি চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দেন। ২০১৭ সালের ৩ মার্চ চাকরি দেওয়ার কথা বলে খায়রুল ইসলামের পরিবারের কাছ থেকে আট লাখ ৩০ হাজার টাকাও নেন তিনি। কিন্তু চাকরি দিতে ব্যর্থ হওয়ায় টাকা ফেরত চান খায়রুল। টাকা ফেরত না দিয়ে চেয়ারম্যান টালবাহানা করতে থাকেন। এনিয়ে পরে বসা শালিসে খায়রুলের পরিবারকে নগদ পাঁচ লাখ টাকা ও তিন লাখ টাকার একটি চেক দেন চেয়ারম্যান মিন্টু। নির্ধারিত তারিখের মধ্যে চেকটি ব্যাংকে জমা দিলে পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সেটি ডিজঅনার করে। এরপর চেয়ারম্যান মিন্টুকে উকিল নোটিসের মাধ্যমে টাকা পরিশোধের অনুরোধ করা হয়। তিনি টাকা না দেওয়ায় আদালতে মামলা করেন খায়রুল ইসলাম।
মামলার সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে আসামি মিন্টুর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও তিন লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মিন্টু পলাতক রয়েছেন।
এই ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে আদালতের সরকারি কৌঁসুলি রফিকুল ইসলাম পিটু ফোন রিসিভ করেননি।

আরও পড়ুন