মেডিটেশনের বিস্ময়কর ক্ষমতা

আপডেট: 02:19:23 10/10/2021



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক: গত ২১ মে বিশ্বব্যাপী পালিত হয়েছে ওয়ার্ল্ড মেডিটেশন ডে। সারা বিশ্বে ৫০ কোটিরও বেশি মানুষ নিয়মিতভাবে মেডিটেশন বা ধ্যানচর্চা করছেন। নিয়মিত ধ্যানচর্চার মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী অনেক মানুষই শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ আছেন।
মেডিটেশনের গুরুত্বের প্রতি লক্ষ রেখে যুক্তরাজ্যসহ পৃথিবীর অনেক দেশে মেডিটেশন বা ধ্যানকে সিলেবাসের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বাংলাদেশেও গত দীর্ঘদিন ধরে অনেকেই মেডিটেশন করছেন।
এনটিভির নিয়মিত স্বাস্থ্যবিষয়ক অনুষ্ঠান ‘ডাক্তার আছেন আপনার পাশে’-এর একটি পর্বে মেডিটেশন বা ধ্যানচর্চা নিয়ে বিস্তারিত বলেছেন বিশেষজ্ঞ দুজন ডাক্তার। তারা হলেন অধ্যাপক ডা. আবুল হোসেন ও অধ্যাপক ডা. জহির উদ্দিন আহমেদ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন ডা. শারমিন জাহান নিটোল।

মেডিটেশন কী, কীভাবে কাজ করে
ডা. আবুল হোসেন বলেন, মেডিটেশন একটি বিজ্ঞান। মেডিটেশন মন ও মস্তিষ্ককে সুপরিকল্পিতভাবে ও সুনিয়ন্ত্রিতভাবে ব্যবহার করার একটি বৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়া। এটাকে মনের যত্ন নেওয়ার একটা প্রক্রিয়া বলতে পারেন। আমরা মেডিটেশনকে যদি সহজভাবে বুঝতে চাই, তাহলে এর তিনটি দিক উল্লেখ করতে পারি। প্রথম হলো, পেশি ও স্নায়ুকে শিথিল করা। সাধারণভাবে যখন পেশি ও স্নায়ু শিথিল হয়, তখন মানুষ ঘুমিয়ে পড়ে, অচেতন হয়ে পড়ে। কিন্তু মেডিটেশন লেভেলে যখন তার পেশি ও স্নায়ু শিথিল হয়, এ সময় তার চেতনা জেগে থাকে। যখন চেতনা জেগে থাকে, তখন তিনি চেতনার অন্তর্গত একটি শক্তি লাভ করেন। আরেকটি দিক হলো, আমাদের মন সব সময় অস্থির থাকে; ভবিষ্যতের শঙ্কা নিয়ে অথবা অতীতের গ্লানি নিয়ে সে সব সময় ব্যস্ত থাকে। বর্তমানে থাকতে চায় না। মেডিটেশন প্রক্রিয়ার একটি দিক হলো, মনকে বর্তমানে নিয়ে আসা। এবং আরেকটি দিক হলো, আত্মনিমগ্ন হওয়া। মানুষ যখন আত্মনিমগ্ন হবে, নিজের ভেতরে ডুব দেবে, তখন তার অন্তর্গত শক্তি ও সুপ্ত প্রতিভাকে উপলব্ধি করতে পারবে এবং প্রকৃত সত্যটা বুঝতে পারবে।
সূত্র: এনটিভি