মাছ চাষে লাখপতি নাসির

আপডেট: 06:59:34 19/03/2021



img

এস আলম তুহিন, মাগুরা : প্রবাদ আছে, ‘পরিশ্রম সাফল্যের চাবিকাঠি’। একজন মানুষের সফলতা পেতে প্রয়োজন প্রবল ইচ্ছাশক্তি ও কঠোর পরিশ্রম। তেমনি কঠোর পরিশ্রমের দ্বারা ভাগ্যের পরিবর্তন করেছেন মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার যুবক নাসির উদ্দিন। মাছ চাষ করে লাখপতি হয়েছেন তিনি। তাকে এখন একনামে চেনে সবাই। তার বাড়ি মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার মন্ডলগাতি গ্রামে।
এসএসসি পাশের পর আর পড়াশোনা করতে পারেনি নাসির উদ্দিন। বয়সও ৩৫ পার হয়েছে। এখন এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা তিনি। ভাগ্যক্রমে একটি চাকরি পেলেও তা চলে যায়। পরে আর কোন চাকরিও মেলেনি। সংকল্প নেন কৃষি ও মৎস্য খামার গড়ে লাখপতি হবেন তিনি। যেমন ইচ্ছা তেমন বাস্তবায়ন।
মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা ইউনিয়ন ও পলাশবাড়িয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ১২টি পুকুরে নাসির উদ্দিন গড়ে তোলেন মাছের খামার। মাছ চাষ থেকে বছরে খরচ বাদ দিয়ে তাঁর লাভ হয় ২৫ লাখ টাকার মত। এছাড়া পুকুর পাড়ে তিনি লাগিয়েছেন কয়েক হাজার কলা গাছ। কলা বিক্রি করেই তার বছরে ৩/৪ লাখ টাকা লাভ হয়। প্রতিবছর মাছ বিক্রি হয় কোটি টাকায়। এবছরও তিনি এক কোটি টাকার মাছ বিক্রি করতে পারবেনব বলে আশা করছেন তিনি।
নাসির উদ্দিন জানান, ২০১৬ সালে রাজশাহীর সিরাজগঞ্জ এলাকার মাছ চাষের লাভ, চাষ পদ্ধতি দেখে মাছ চাষে উৎসাহিত হন তিনি। এরপর অনাবাদি এবং জঙ্গলে ভরা ১০ একর জায়গার উপর ঘের কেটে মাছ চাষ শুরু করেন। প্রথমে তিনি ১০ লাখ টাকার বিনিয়োগ করেন। মাছ চাষ লাভজনক হওয়ায় বিনিয়োগ বাড়ান। বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ৬০ একর জমিতে তার বিনিয়োগ এখন কোটি টাকার উপরে। তার ঘেরে রুই, কাতলা, মৃগেলসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ হচ্ছে। তার লাভ এবং চাষ পদ্ধতি দেখে এখন অনেকেই মাছ চাষ শুরু করেছেন।
নাছির উদ্দিন বলেন, আমাকে সরকারিভাবে যদি সহায়তা করা হতো, তাহলে আমি খামার আরো বড় করতে পারতাম।
কর্মচারী হাসান আলী বলেন, বৈশাখ মাস থেকে মাছ ধরা শুরু করি। তিন মাস ধরে মাছ বিক্রি হবে। নাসির ভাই আমাকে মাসে ১০হাজার টাকা বেতন দেন। আমার মত আরো ৬/৭জন লোক আছে। নাসির ভাইয়ের সাথে থাকতে পেরে আমাদের ভালো লাগে।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোস্তফা আল রাজীব বলেন, নাসির উদ্দিন একজন সফল চাষী। তিনি জাতীয় পুরষ্কার পাওয়ার সব শর্ত পূরণ করেছেন। পুরষ্কারের জন্য আমরা তার নাম উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছি। আশারাখি এ উপজেলা থেকে সে অবশ্যই পুরস্কার অর্জন করবে।
মহম্মদপুর উপজেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা যায়, মাছ চাষে জাতীয় পুরষ্কার পেতে হলে পরিবেশ বান্ধব মাছ চাষ, হেক্টরে ৮ মেট্রিক টন উৎপাদন থাকতে হবে। উত্তম মাছ চাষ পদ্ধতি হতে হবে এরকম বেশকয়েকটি শর্ত পূরণ করতে হবে।

আরও পড়ুন