মাকে অজ্ঞান করে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট: 06:53:16 08/03/2021



img

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : খুলনার পাইকগাছায় চাকরিজীবী ছেলের সাথে বিয়ে দেওয়ার নাম করে বাড়িতে ডেকে এনে মাকে অজ্ঞান করে মেয়েকে ধর্ষণ করার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে। এই অভিযোগে ধর্ষককে আটক করেছে পুলিশ।
অভিযোগে বলা হয়, গত ৩ মার্চ উপজেলার উত্তর সলুয়া গ্রামের মৃত রহিম বক্সর ছেলে মিজানুর রহমান অন্য একটি গ্রামের শেখ ফরিদ উদ্দীনের নবম শ্রেণিপড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণ করে। পরে সে মাটিকে পাশের উপজেলা কয়রার অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। পরের দিন সকাল সাতটায় কপিলমুণি ধান্য চত্বরে ছেড়ে দিয়ে চলে যায়।
সংবাদ পেয়ে বাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। মেয়ের কাছ থেকে বিস্তারিত জানার পর ভিকটিমের মা মেরিনা বেগম বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। পুলিশ অভিযুক্তকে রোববার রাতে সোনাতনকাটি বাজার থেকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।
বাদী মেরিনা বেগম জানান, তার মেয়েকে কয়রার এক চাকরিজীবী ছেলের সাথে বিয়ে দেবে বলে জানিয়েছিল মিজানুর। সেই অনুযায়ী মেয়েসহ তাকে নিজ বাড়িতে ডাকে মিজানুর। ঘরে বসিয়ে তাদের কোমল পানীয় দেয়। সেই পানীয় পান করে মেরিনা অজ্ঞান হয়ে যান। তখন মেয়েকে ধর্ষণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় মিজানুর। একদিন পর ৪ মার্চ সকালে তাকে কপিলমুণি ধান্য চত্বরে বেহাল অবস্থায় পাওয়া যায়।
পাইকগাছা থানার ওসি এজাজ শফী জানান, অভিযুক্ত ধর্ষককে ধরে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন