মহেশপুরে ২৫ মাদরাসায় ষষ্ঠ শ্রেণির বই সংকট

আপডেট: 08:04:03 20/01/2020



img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : মহেশপুর উপজেলার ২৫টি দাখিল মাদরাসার ষষ্ঠ শ্রেণির বই সংকট দেখা দিয়েছে। শিক্ষার্থীরা বই না পেয়ে পাঠদান থেকে পিছিয়ে পড়ছে।
মাদরাসার সুপাররা বই সংকটের কারণ হিসেবে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আমজাদ হোসেনকে দায়ী করছেন। আর শিক্ষার্থীরা অবিলম্বে সরকারের ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপ দাবি করেছেন।
সুপারদের অভিযোগ, উপজেলায় ২৫টি দাখিল মাদরাসায় ষষ্ঠ শ্রেণির এক হাজার ৮০০ ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানের সুপাররা দুই হাজার ২০০ বইয়ের চাহিদাপত্র দেন মহেশপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আমজাদ হোসেনের কাছে। তিনি খামখেয়ালিপনা করে এক হাজার ১০০ বইয়ের চাহিদাপত্র পাঠান ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষা অফিসে। ফলে মাদরাসাগুলোতে চাহিদা অনুযায়ী বই সরবরাহ হয়নি। বঞ্চিত শিক্ষার্থীরা পড়েছে হতাশায়।
প্রতিষ্ঠানপ্রধানরা বলছেন, বই না পাওয়ায় শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে পড়ছে। অভিভাবকরা প্রতিষ্ঠানে এসে বই দাবি করছেন। এতে করে মাদরাসায় শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।
তাদের অভিযোগ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ২০১৯ সালের বই পরিবহন খরচের টাকাও কোনো মাদরাসা কর্তৃপক্ষকে দেননি।
মহেশপুর উপজেলা মাদরাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি আবুল হাসেম ষষ্ঠ শ্রেণির বই সংকটের কথা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা এ বছর চাহিদা অনুযায়ী বই ও পরিবহন খরচের টাকা পাইনি। বাধ্য হয়ে গত বছরের পুরনো বই সংগ্রহ করে কাজ চালাচ্ছি।’
এ ব্যাপারে মহেশপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আমজাদ হোসেন বলেন, ‘প্রাইমারি সমাপনী পরীক্ষার ওপর ভিত্তি করে আমি চাহিদাপত্র দিয়েছিলাম। কিন্তু মাদরাসার অনেক শিক্ষার্থী বই পায়নি। এটা দুঃখজনক। এই সংকট নিরসনের জন্য কাজ করা হচ্ছে।’
বই পরিবহন খরচের টাকা না দেওয়ার অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘খেয়াল ছিল না। পর্যায়ক্রমে প্রতিটি মাদরাসায় টাকা প্রদান করা হবে।’

আরও পড়ুন