মহেশপুরে স্বাস্থ্যবিধির ধার ধারছেন না ক্রেতারা

আপডেট: 08:14:43 16/05/2020



img
img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : স্বাস্থ্যবিধির ধার ধারছে না মহেশপুরে বাজারে বেচাকেনায় রত লোকজন। দোকানে দোকানে মানুষের সমারোহ। ক্রেতারা বেপরোয়াভাবেই কেনাকাটায় লিপ্ত।
নির্দেশনা মেনে ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্য সুরক্ষার সরঞ্জাম রেখেছেন দোকানের সামনে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, খরিদ্দাররা না মানলে তারা আসলে নিরুপায় হয়ে যান।
শুক্রবার সকালে দিকে মহেশপুরের মার্কেটগুলো ঘুরে দেখা গেছে বিপনী বিতান, জুতার দোকান, কসমেটিকসের দোকানগুলোতে ক্রেতাদের বেশ ভিড়। এর মধ্যে ‘মনে রেখো শপিং কমপ্লেক্স’, ‘হাবিব বস্ত্রালয়’, ‘ভাই ভাই বস্ত্রালয়’, ‘শাড়ি হাউজ’ ও ‘মোজাম্মেল টাওয়ারের’ দোকানগুলোতে বেশি ভিড় লক্ষ করা গেছে। সকাল দশটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার সুযোগ থাকায় একই সময়ে খরিদ্দারের আগমন ঘটছে বেশি।
দোকানদারা জানান, সময় স্বল্পতার কারণে বিপনী বিতানসহ সব দোকানে ভিড় বাড়ছে। ক্রেতারা শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখছেন না অথবা রাখতে পারছেন না। ফলে অসহায় হয়ে পড়েছেন দোকানিরা।
‘শাড়ি হাউজের’ মালিক আবু সাঈদ বলেন, ‘আমার এখানে নতুন কিছু কাপড় ও ত্রিপিচের আইটেম আসার কারণে ক্রেতাদের ভিড় একটু বেশি হচ্ছে।’
মহেশপুর বণিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি ফশিয়ার রহমান জানান, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যেও ঈদবাজারে ক্রেতা-বিক্রেতারা দূরত্ব বজায় রাখছেন না। এখন পর্যন্ত যেভাবে ভিড় বাড়ছে তাতে সামনের দিনগুলোতে কী পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে, তা কেবল আল্লাহই জানেন।
পৌরসভার মেয়র আব্দুর রশিদ খান বলেন, ‘বাজারে জট সরাতে তিনজন লোক দেওয়া হয়েছে। শহরে চলছে মাইকিং। তারপরও দোকানগুলোতে এতো ভিড় যে. আমার কিছুই করার নেই। এটা দেখবে উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ।’
মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সুজন সরকার বলেন, ‘মানুষ যদি সচেতন না হয় তাহলে কী করার আছে? তারপরও আমরা বিষয়টি দেখছি।’

আরও পড়ুন