মণিরামপুরে ঠাকুর দেখতে গিয়ে কিশোরী ধর্ষিত

আপডেট: 10:52:04 13/11/2019



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের মণিরামপুরে কালীপূজায় ঠাকুর দেখতে গিয়ে ১৩ বছর বয়সী এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে।
এই ঘটনায় কিশোরীর মা মঙ্গলবার রাতে মণিরামপুর থানায় মামলা করেন। বুধবার পুলিশ অভিযুক্ত ধর্ষক শিবপদ রায়কে (৪৭) আটক করে আদালতে সোপর্দ করেছে।
শিবপদ উপজেলার পাঁচাকড়ি গ্রামের কালিপদ রায়ের ছেলে। তিনি খুলনার ডুমুরিয়ার হাসানপুর হাইস্কুলের শিক্ষক। তার স্ত্রী সোনালি বিশ্বাসও পেশায় শিক্ষক।
মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ওই কিশোরীর বাড়ি খুলনার ডুমুরিয়ার একটি গ্রামে। সম্প্রতি মায়ের সঙ্গে সে মণিরামপুরের পাঁচাকড়ি গ্রামে মামার বাড়িতে বেড়াতে আসে। গত ২৭ অক্টোবর কালীপূজার দিন বিকেল চারটার দিকে পাঁচাকড়ি রাজবংশীপাড়া কালীমন্দিরে পূজা দেখতে যায় সে। তখন শিবপদ রায় তাকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। ওই সময় শিবপদর স্ত্রী সোনালি বিশ্বাস বাড়িতে ছিলেন না। সেই সুযোগে বসতঘরের মধ্যে কিশোরীকে ধর্ষণ করেন শিবপদ। ঘটনার বিষয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য ওই কিশোরীকে ভয়ভীতিও দেখানো হয়।
স্থানীয়রা জানান, ঘটনার দুই-তিন দিন পর ওই কিশোরী তার মাকে বিষয়টি খুলে বলে। পরে ঘটনা চাপা দিতে দুইপক্ষের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা চলে। একপর্যায়ে ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মণিরামপুর থানার এসআই জামাল হোসেন বলেন, অভিযুক্ত ধর্ষক শিবপদকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন