ভারতজুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে বার্ড ফ্লু, বাড়ছে শঙ্কা

আপডেট: 03:18:41 11/01/2021



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই ভারতজুড়ে বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়ছে। সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, এরইমধ্যে নয়টি রাজ্যে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। সর্বশেষ দিল্লি ও মহারাষ্ট্র সংক্রমণের খবর জানিয়েছে। এর আগে, উত্তরপ্রদেশ, কেরালা, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, হরিয়ানা এবং গুজরাটে বার্ড ফ্লু শনাক্ত হয়।
বার্ড ফ্লু সাধারনভাবে ফ্লু বা ইনফ্লুয়েঞ্জা জাতীয় একটি রোগ। এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা নামক ভাইরাসের সংক্রমণে এই রোগ হয়। ভাইরাস বাহিত এই রোগটি পাখিদের সংক্রমিত করে। পাখিরা খুব দ্রুত একস্থান থেকে অন্য স্থানে চলে যেতে পারে বলে এই রোগ দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে। আবার প্রকৃতিতে স্বাধীনভাবে বিচরণ করা পাখির মাধ্যমে এই রোগ সহজেই গৃহপালিত পাখিতেও সংক্রমিত হয়।
এনডিটিভি জানিয়েছে, ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ পাখি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে হরিয়ানায়। গত কয়েক সপ্তাহে রাজ্যটিতে চার লাখেরও বেশি পাখি মারা গেছে। সতর্ক অবস্থানে আছে জম্মু ও কাশ্মির এবং ছত্তিশগড়। মহারাষ্ট্রে গত দুই দিনে ৮০০ মুরগীর মৃত্যু হয়েছে। তাদের নমুনা পরীক্ষায় বার্ড ফ্লু সংক্রমণ ধরা পড়েছে।
কেরালার আলাপ্পুঝা ও কোত্তায়াম জেলায় ১২ হাজার হাঁস মারা যাওয়ার পর সেখানে এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জার এইচফাইভএনএইট স্ট্রেইন নিশ্চিত হলে গত সপ্তাহে ১০ হাজারের মতো পাখি হত্যা করা হয়। আক্রান্ত এলাকায় মুরগি বিক্রির ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছে।
শনিবার হরিয়ানার পাঁচটি পোল্ট্রি ফার্মে এক লাখ ৬০ হাজার পাখি হত্যার কাজ শুরু হয়। গত দুই থেকে তিন সপ্তাহে রাজ্যটিতে প্রায় চার লাখেরও বেশি পাখি মৃত্যুর তথ্য পাওয়া গেছে। হিমাচলে একটি অভয়ারণ্যে মারা গেছে প্রায় দুই হাজার পাখি। রাজ্যের কাঙগ্রা জেলায় হাঁস, মুরগী, মাছ, মাংস, ডিম কেনা-বেচায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।
এনডিটিভি জানিয়েছে, ইতোমধ্যে দেশে পশুর ভ্যাকসিনের সহজলভ্যতা যাচাইয়ের জন্য পশুপালন মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের তলব করেছে কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। সোমবার বিকাল ৩টায় এ সম্পর্কিত বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।
এদিকে হাঁস-মুরগি ও এ জাতীয় পাখি আমদানি নিষিদ্ধ এবং গাজীপুরে রাজ্যের সবচেয়ে বড় পাইকারি পোল্ট্রি বাজার বন্ধ করে দিয়েছে দিল্লি। সংক্রমণ ঠেকাতে প্রতিটি জেলায় বিশেষজ্ঞদের নিয়ে জরুরি টিম গঠন করা হয়েছে।
পাখি থেকে এই রোগ কোনোভাবেই যেন মানুষের মধ্যে না ছড়ায়, তা নিশ্চিতে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বনের জন্য রাজ্যগুলোকে কড়া নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।
সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

আরও পড়ুন