ভাটাশ্রমিকের শেকলে বাঁধা জীবন, মালিক আটক

আপডেট: 09:34:59 20/01/2020



img
img

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলের কালিয়ায় ইটভাটার এক শ্রমিককে অপহরণের পর আটকে রেখে কোমরে শেকল বেঁধে কাজ করতে বাধ্য করার অভিযোগ উঠেছে। ওই শ্রমিককে রাতে পায়ে ও হাতে শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতনেরও অভিযোগ করা হচ্ছে।
গতরাতে উপজেলার বড়নাল গ্রাম থেকে শেকল বাঁধা অবস্থায় শ্রমিক সালাউদ্দিন গাজীকে (২৫) বন্দিদশা থেকে পুলিশ উদ্ধার করে। ওই শ্রমিককে ৫০ দিন ধরে এভাবেই শিকলবন্দি করে রাখা হয়েছিল বলে অভিযোগ।
উদ্ধার হওয়া শ্রমিক খুলনার কয়রার দেলবার গাজীর ছেলে। এ ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
অপহরণের ৫০ দিন পর নির্যাতিত শ্রমিকের বাবা দেলবার গাজী গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ছেলের সন্ধান পেয়ে কালিয়া থানার দ্বারস্থ হয়। খবর পেয়ে রোববার রাত সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার বড়নাল গ্রামে এএসপি রিপনচন্দ্র সরকারের নেতৃত্বে ডিবি, থানা ও বড়নাল ক্যাম্পের পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে শিকল বাঁধা অবস্থায় শ্রমিক সালাউদ্দিন গাজীকে বন্দিদশা থেকে উদ্ধার করে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ইলিয়াছাবাদ ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মল্লিক মনিরুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, জনৈক নুরুল হকের ছেলে ও ইলিয়াছাবাদ ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মল্লিক মনিরুল ইসলাম ২০১৯ সালের ৩০ নভেম্বর বরিশালের মুলাদী থেকে র‌্যাব পরিচয়ে শ্রমিক সালাউদ্দিনকে অপহরণ করে আনেন। পরে তাকে শেকল দিয়ে বেঁধে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে নির্যাতন চালাতেন।
তবে মল্লিক মনিরুল ইসলামের পরিবারের দাবি, শ্রমিক সালাউদ্দিনের শ্বশুরের কাছে ভাটার মালিক মল্লিক মনিরুল ইসলাম টাকা পেতেন।
মল্লিক মনিরুল ইসলাম উপজেলার বিলদুড়িয়া হাটখোলা বাজার এলাকায় স্থাপন করেছেন ‘এসএমবি ব্রিকস’ নামে একটি ইটভাটা।
এলাকাবাসী জানান, সাবেক এই চেয়ারম্যানের শটগানের গুলিতে যুবলীগ নেতা এনামুল হক নিহত হয়েছিলেন বলে অভিযোগ আছে। ওই হত্যা মামলার প্রধান আসামিও তিনি।
তারা জানান, প্রভাবশালী মনিরুল স্থানীয় বড়নাল দাখিল মাদরাসার জায়গা ও তোকন মল্লিকের জায়গা দখল করে মাদরাসার পাশেই অনুমোদনবিহীন ইটভাটাটি স্থাপন করেছেন। ইটভাটায় দিনভর হাড়ভাঙা খাটুনির পরও পান থেকে চুন খসলেই শ্রমিকদের ওপর চলে অত্যাচার-নির্যাতন।
সালাউদ্দিন গাজীর শ্বশুরের  কাছে কথিত পাওনা টাকার অজুহাতে মল্লিক মনিরুল ইসলাম তাকে দীর্ঘদিন ধরে শেকলে বেঁধে ভাটায় কাজ করতে বাধ্য করান। কাজ করতে না চাইলে তার ওপর চলতো শারীরিক নির্যাতন। উদ্ধারের আগ পর্যন্ত ৫০ দিন শেকলবাঁধা অবস্থায় কঠোর শ্রম দিতে বাধ্য হয়েছেন সালাউদ্দিন।
অবশেষে এএসপি রিপনচন্দ্র সরকারের নেতৃত্বে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। উদ্ধারের সময় সালাউদ্দিন শেকলে বাঁধা অবস্থায় মনিরুলের বড়নাল গ্রামের বাড়ির পাশে আরেকটি বাড়িতে ছিলেন।
এ প্রসঙ্গে শ্রমিক সালাউদ্দিন গাজী বলেন, ‘দেড় মাস আগে মল্লিক মনিরুল ইসলামসহ অন্যান্যরা বরিশালের মুলাদী থেকে র‌্যাব পরিচয়ে আমাকে অপহরণ করে ভাটায় নিয়ে আসে। আমি পালিয়ে যেতে পারি- এ আশঙ্কায় ৫০ দিন ধরে আমার ওপর নির্যাতন চালিয়েছে। অপরদিকে পায়ে, হাতে ও কোমরে লোহার শেকল বেঁধে তালাবন্ধ করে ইটভাটায় আটকে রেখে কাজ করানো হয়। আমার শরীর থেকে একটি মুহূর্তের জন্যও শেকল খোলা হয়নি।’
এএসপি রিপনচন্দ্র সরকার বলেন, অপহৃত ও নির্যাতিত সালাউদ্দিন গাজীকে অভিযুক্ত সাবেক চেয়ারম্যান মল্লিক মনিরুল ইসলামের বাড়ির পাশ থেকে শেকলবাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। এই বিষয়ে আটক মনিরুলসহ অজ্ঞাতনামা ৭-৮ জনকে আসামি করে কালিয়া থানায় একটি মামলা হয়েছে।

আরও পড়ুন