প্রসূতির জীবন সঙ্কটে, নড়াইল আদালতে নালিশ

আপডেট: 07:20:21 26/01/2021



img

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলের একটি ক্লিনিকে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে অপারেশন, চিকিৎসকের গাফিলতিতে প্রসূতির জীবন সংকটাপন্ন হওয়ার অভিযোগে আদালতে মামলা হয়েছে।
মামলায় নড়াইল সদর হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. মো. আকরাম হোসেনসহ ইমন ক্লিনিক নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মালিক মো. সারোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী শিল্পী বেগমকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। মামলার বাদী ভুক্তভোগী প্রসূতি ঝুমা বেগমের স্বামী মাহফুজ নুর রিপন।
২৫ জানুয়ারি নড়াইল সদর নালিশি আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়। আদালতের বিচারক সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমাতুল মোর্শেদা আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি সিভিল সার্জনকে সশরীরে হাজির হয়ে এই বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য বলেছেন।
মামলায় বলা হয়, ২৪ ডিসেম্বর ইমন ক্লিনিকে সিজার করাতে যান সন্তানসম্ভবা ঝুমা বেগম। অস্ত্রোপচার করেন সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মো. আকরাম হোসেন। অপারেশনে নিম্নমানের সূতা এবং সামগ্রী ব্যবহার করা হয়। এর ফলে রোগীর তলপেট ফেটে রক্ত বের হয়ে জরায়ূ এবং প্রস্রাবের নালীতে পচন ধরে। অবস্থা খারাপ হয়ে ওঠায় খুলনায় নিয়ে দ্বিতীয় দফা অস্ত্রোপচার করে জরায়ু কেটে ফেলা হয় ওই নারীর। এই ভুল চিকিৎসায় চিকিৎসক ও ক্লিনিক মালিকরা যুক্ত। নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার এবং চিকিৎসকের গাফিলতির ফলে চার লাখ টাকা খরচসহ স্ত্রীর জীবন বিপন্ন হওয়ায় আদালতের কাছে উপযুক্ত শাস্তি দাবি করেছেন মামলার বাদী মাহফুজ নুর রিপন।

আরও পড়ুন