প্রণোদনা : একই অনিয়ম ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানেরও

আপডেট: 10:31:45 11/07/2020



img

মৌসুমী নিলু, নড়াইল : ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পেয়েই নড়াইলের কালিয়া উপজেলার পেড়লী ইউনিয়নের মেম্বার শাহাজান শেখ প্রকৃত অসচ্ছল পরিবারদের বঞ্চিত করে  দুই নম্বর ওয়ার্ডের খড়রিয়া গ্রামের নিজ বংশ শেখ পরিবারেরই ২০টি নাম, মোবাইল নাম্বার অন্তর্ভুক্ত করে তালিকা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা নগদ আড়াই হাজার টাকা করে পাওয়ার জন্য। যার মধ্যে রয়েছেন তার বিদেশফেরত ভাই আপন জামাতা, ছেলে, বোন, ভাইপোরা। রয়েছেন প্রভাবশালী বালি ও বাঁশ ব্যবসায়ী। কেউ কেউ ইতিমধ্যে টাকাও পেয়েছেন।
দুর্নীতি এড়াতে সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অসহায়-অসচ্ছল পরিবারের মাঝে নগদ আড়াই হাজার টাকা করে মোবাইল নাম্বারের মাধ্যমে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। নামের তালিকা প্রদান করেন ইউপি চেয়ারম্যানরা।
পেড়লী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. জারজিদ মোল্যাকে দুর্নীতির অভিযোগে স্থানীয় সররকা মন্ত্রণালয় বরখাস্ত করলে এই ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. শাহাজান শেখ গত ৩ মে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পান। এরপর সরকারিভাবে মোবাইলের সিম নাম্বারসহ নামের তালিকা চাওয়া হয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. শাহাজান শেখ নিজের শেখ পরিবারের ২০ জনের নাম ও মোবাইল নাম্বার অন্তর্ভুক্ত করেন। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক সমালোচনা চলছে। অসচ্ছলদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. শাহাজান শেখের একমাত্র ছেলে লিংকন শেখ (যার মোবাইল ফোন নাম্বার ০১৭৫৮৬৪৮১৩৪, এনআইডি নাম্বার ৬৫১২৮৮৭০৩৫৫৫৯), জামাতা ইব্রাহিম (ফোন ০১৭৩৭৯৫৬২১১, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭২৯২৩১২), আপন বড় ভাইয়ের ছেলে মো. রিপন শেখ (ফোন ০১৭৩১৯৫৭১০৫, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০২৪৪২), আপন ভাইয়ের ছেলে জাহাঙ্গির শেখ (ফোন ০১৯৪১৩৮১৭৫২, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০৩১৩৫), আপন ভাইয়ের ছেলে মো. মুখিদ শেখ (ফোন ০১৭৮৭৪৯৩৯৭৭, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০৩১২৮), আপন ভাইয়ের ছেলে মো. সোহাগ শেখ (ফোন ০১৯৪৬৫৯৪৪৯১, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০৩১৩১), চাচাতো ভাই বাদল শেখ (ফোন ০১৩১৯৪৫৩৫১০, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০২৯০১), বিদেশফেরত চাচাতো ভাই মো. ইমরান শেখ (ফোন ০১৭৭৪৪৬৯৯০৬, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭০০০০৬৪), চাচাতো ভাইয়ের ছেলে মো. সুমন শেখ (ফোন ০১৯৮২৯৪৪৯৫৫, স্মার্ট কার্ড নাম্বার ৫৯৭১১৪৩২৫৯), সৎভাই মো. আরশাদ শেখ (ফোন ০১৯৩৬১৬২৯৪০, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০৩০৭৫), চাচাতো ভাইয়ের ছেলে মো. রাসেল শেখ (ফোন ০১৭৮২১৪৯৯২০, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০২৭৭১), চাচাতো বোন মনজিলা খাতুন (ফোন ০১৯৩৮৬০৩৩৭১, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০৩২৫৩), চাচাতো ভাই দেলোয়ার শেখ (ফোন ০১৯১৭৯৩৪৩৮৩, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০২৮১৪), চাচাতো ভাই লিটন শেখ (ফোন ০১৪০৩৭০৭৩১৬), চাচাতো ভাই খোকন শেখ (ফোন ০১৭৫৭৭০১৯৯৫, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০২৫৪৬), চাচাতো ভাই মঞ্জুর শেখ (ফোন ০১৭৬০৮১৭৮৭৭, স্মার্ট কার্ড ১৪৭৩১০২৬৪৬), চাচাতো ভাই আলামিন শেখ (ফোন ০১৯৫৩৩৪৯১০২, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭০০০১৩৮), আপন ভাইয়ের ছেলে শিপন শেখ (ফোন ০১৯৫১৯১২৩৭২, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০২৪৩৫), আপন চাচাতো ভাই শাবুল শেখ (ফোন ০১৭১০০২৭৪৬২, এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০২৫০৬), আপন চাচাতো ভাই সুলতান শেখ, যিনি খড়রিয়া নয়, মির্জাপুরে বসবাস করেন, (ফোন ০১৭৯২৩৩৪৯৩৫. এনআইডি ৬৫১২৮৮৭৩০২৫০৪)- মোট ২০ জনের নাম, ফোন নাম্বারসহ তালিকা পাঠিয়েছেন চেয়ারম্যান।
আপন ভাই ছেলে, জামাই, ভাইপোদের নাম, নাম্বার দেওয়ার কথা স্বীকারও করেছেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. শাহাজান শেখ।
তিনি বলেন, ‘কিছু নাম আমি দিয়েছি, আর কিছু মহিলা মেম্বার  দিয়েছে, আর কিছু দল থেকে দিয়েছে।’
প্রকৃত অসচ্ছলদের বঞ্চিত করার বিষয়ে জানতে চাইলে শাহাজান বলেন, পরে ব্যবস্থা করা হবে।
এ বিষয়ে কালিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাজমুল হুদা বলেন, ‘ফোনে অভিযোগ পেয়েছি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

আরও পড়ুন