নড়াইলে ছয় মাস পর তরুণীর লাশ উত্তোলন

আপডেট: 08:13:08 23/02/2021



img

নড়াইল প্রতিনিধি : মৃত্যুর ছয় মাস পর নড়াইল সদর উপজেলার যদুনাথপুর গ্রামের কবর থেকে উম্মে হানি মোস্তারি তন্বি (২০) নামে এক তরুণীর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ওঠানোর পরে আবারো দাফন করা হয়েছে।
পারিবারিক ও এজাহার সূত্রে জানা গেছে, লোহাগড়ার মাকড়াইল গ্রামের তবিবার রহমানের তুরস্কপ্রবাসী ছেলে ফরিদ রহমানের (৩২) সাথে নড়াইল সদর উপজেলার বাঁশগ্রাম ইউনিয়নের যদুনাথপুর গ্রামের জালাল মোল্যার মেয়ে তন্বির মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিয়ে হয়।
বিয়ের প্রায় এক বছর পর স্বামী ফরিদ দেশে ফিরে আসেন। এরপর তাদের একটি কন্যাসন্তান জন্মগ্রহণ করে।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ২৮ আগস্ট তারিখে তন্বি শ্বশুরবাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে নড়াইল সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। উভয় পরিবারের সম্মতিতে লাশের ময়নাতদন্ত ছাড়াই বাবার বাড়ির কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।
ঘটনার প্রায় চার মাস পর তন্বির বড় ভাই ফরিদ উদ্দিন জানতে পারেন, তার বোন শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যাতনে মারা গেছেন। এরপর তিনি চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি আদালতে তন্বির স্বামীসহ পাঁচজনকে আসামি করে নালিশি আবেদন করেন।
আদালত ঘটনা আমলে নিয়ে লোহাগড়া থানায় একটি এফআইআর করার আদেশ দেন। আদেশের পর মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলাউদ্দিন ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইনসপেক্টর মাহমুদুর রহমানের উপস্থিতিতে কবর খুঁড়ে মৃতদেহের নমুনা সংগ্রহ করে ফের দাফন করা হয়।
ইনসপেক্টর মাহমুদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত স্বামী ফরিদকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।  

আরও পড়ুন