নষ্ট হয়ে যাচ্ছে পাইকগাছায় উপড়ে পড়া গাছ

আপডেট: 04:01:29 28/09/2020



img

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : পাইকগাছায় প্রাকৃতিক দুর্যোগে ভেঙে ও উপড়ে পড়া গাছ বিক্রি না করায় সরকার ও স্থানীয় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা লাখ লাখ টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দপ্তরে আবেদন করা হয়েছে বলে সম্ভাব্য উপকারভোগীরা জানিয়েছে।
অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার হরিটালী ইউনিয়নের নয় কিলোমিটার বিভিন্ন সড়কে বন বিভাগের উদ্যোগে ৩৩০ ব্যক্তি (যাদের উপকারভোগী বলা হয়) সদস্যরা রাস্তার দুই ধার দিয়ে বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারা রোপণ করেন। ২০০০ ও ২০০১ সালে এসব গাছের চারা রোপণ করা হয়েছিল; যেগুলো এখন কর্তন-উপযোগী বলে হরিঢালী কেএসএস লিমিটেডের সভাপতি মুন্সী সিফায়েত হোসেন জানান।
ঘূর্ণিঝড় ফণী, আম্পান ও বুলবুলের তাণ্ডবে অসংখ্য গাছ রাস্তার ওপর ও পাশের জমিতে ভেঙে ও উপড়ে পড়ে। চরম দুর্ভোগে পড়েন জনসাধারণ। দুর্ভোগ এড়াতে কর্তৃপক্ষের নির্দেশে উপকারভোগীরা ক্ষতিগ্রস্ত গাছ বিভিন্ন স্থানে সংরক্ষণ করে রেখেছেন।
এই ব্যাপারে সমিতির সম্পাদক শেখ লিটন বলেন, সংরক্ষণে রাখা ক্ষতিগ্রস্ত গাছ বিক্রি না করায় তা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। সরকার ও উপকারভোগীরা লাখ লাখ টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ বিষয়ে কয়েক মাস আগে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দপ্তরে আবেদন করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী বলেন, ‘আবেদন পেয়েছি। অবগত করার জন্য বন কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর মিটিং করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
বন বিভাগের কর্মকর্তা প্রেমানন্দ রায় জানান, প্রকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত গাছ সংরক্ষণ করা হলেও রোদ-বৃষ্টিতে সেগুলোর প্রায় সব নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। দ্রুত বিক্রি করার প্রয়োজন।

আরও পড়ুন