ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন দাবি

আপডেট: 03:32:06 30/09/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরের ঝিকরগাছা পৌরসভায় নির্বাচন আয়োজনের দাবি সামনে এনেছে পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি একেএম আমানুল কাদির। আমানুল কাদির টুলু মঙ্গলবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করেন।
‘সীমানা জটিলতায়’ দীর্ঘ ২০ বছর এই পৌরসভায় নির্বাচন হয়নি।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়েন টুলু নিজেই। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, ঝিকরগাছা থানা তরুণলীগের সভাপতি মনিরুল ইসলাম শিপলু, পৌর সভাপতি শামীম হাসান প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে আমানুল কাদির টুলু বলেন, ২০০২ সালের ২ এপ্রিল ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৩ মে নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলররা দায়িত্ব নেন। নির্বাচন কমিশনের বিধান অনুযায়ী পৌর পরিষদ শপথ গ্রহণের পর থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে পরবর্তী নির্বাচন হওয়া বাধ্যতামূলক।
‘কিন্তু নির্বাচিত মেয়র কূটকৌশল অবলম্বন করে তার নিজস্ব লোক দিয়ে সীমানা সংক্রান্ত জটিলতা সৃষ্টি করে হাইকোর্টে সঠিক সীমানা নির্ধারণ না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ চেয়ে রিট করেন। বর্তমানে মেয়র অবৈধ প্রভাব বিস্তার করে হাইকোর্টের সিদ্ধান্ত নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টিগোচর করা থেকে বিরত রেখেছেন।’
তিনি বলেন, মেয়রের নিজস্ব তিনজন রিট পিটিশনারের দুইজন মো. সাইফুজ্জামান (৬০) ও শাহিনুর রহমান (৫৫) এফিডেভিটের মাধ্যমে মামলা না চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন। অপরজন মো. শাহাদৎ হোসেন মারা গেছেন। এমন অবস্থায় বাদীবিহীন রিট পিটিশন কেন চলবে?’
তিনি জেলা প্রশাসনের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘পাঁচ বছরের জন্য মেয়র-কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে কীভাবে ২০ বছর ক্ষমতায় থাকে?’
সীমানা জটিলতায় ভোট বন্ধ থাকার কারণে তিনি প্রশাসনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবি জানান। একইসঙ্গে মেয়রের সম্পদের ব্যাপারে দুদকের তদন্ত দাবি করেন।

আরও পড়ুন