চৌগাছায় সংখ্যালঘুদের মানববন্ধন স্মারকলিপি

আপডেট: 06:12:44 22/01/2020



img

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : চৌগাছার তিনটি গ্রামের ৫০/৬০টি ধর্মীয় সংখ্যালঘু (হিন্দু) ও সম্পত্তি বিনিময়কারী পরিবারের প্রায় শতাধিক বিঘা জমি অবৈধ দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ ও ওই তিন গ্রামবাসী।
মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদানের মাধ্যমে তারা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
বুধবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত শহরের মুক্তিযুদ্ধ ভাস্কর্য মোড়ে এই মানববন্ধন হয়।
মানববন্ধনে ওই তিনগ্রাম এবং উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের পাঁচ শতাধিক ব্যক্তি অংশ নেন।
পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে গ্রামবাসীর গণস্বাক্ষরে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি দেওয়া হয়।
মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অধ্যক্ষ বলাইচন্দ্র পাল, সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয়, পাশাপোল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান প্রভাষক অবাইদুল ইসলাম সবুজ, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সহ-সভাপতি সন্তোষকুমার রায় ও সুকুমার সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক বিজয়কৃষ্ণ অধিকারী, পাশাপোল ইউনিয়ন সভাপতি মহাদেবচন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক ডা. মৃণালকান্তি রায়, চৌগাছা পৌর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অশোককুমার হালদার প্রমুখ।
গ্রামবাসীর গণস্বাক্ষর করা স্মারকলিপিতে বলা হয়, ফুলসারা ইউনিয়নের সলুয়া গ্রামের ‘ভূমিদস্যু’ ইছহক আলী এবং তার দুই ছেলে আকমল হোসেন ও আশরাফ হোসেন পাশাপোল ইউনিয়নের হাউলি, মালিগাতি, দুড়িয়ালী গ্রামের সংখ্যালঘু ও সম্পত্তি বিনিময়কারী মুসলিম সম্প্রদায়ের শতাধিক বিঘা জমি অবৈধভাবে জালজালিয়াতির মাধ্যমে বিভিন্ন আদালতে মামলা করে জোরপূর্বক গুন্ডাবাহিনী দিয়ে দখল করে নিয়েছেন। এতে গ্রামগুলোর ৫০-৬০টি পরিবার তাদের ন্যায্য সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত হয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছে। তাদের গুন্ডাবাহিনী হিন্দু পরিবারগুলোকে ‘ভারতে চলে যেতে’ হুমকি দিচ্ছে এবং সম্পত্তি বিনিময় করে বাংলাদেশে আসা মুসলিমদেরও ফের ভারতে চলে যাওয়ার জন্য হুমকি-ধামকি ও মারপিট করছেন। ফলে ওই তিনটি গ্রামসহ আসেপাশের কয়েক গ্রামের লোকজন ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছেন।
মানববন্ধনে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয় বলেন, ‘গায়ের জোরে ওই চক্র জমি দখল করেছে। প্রশাসনের কাছে আমাদের দাবি, ঘটনা সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।’

আরও পড়ুন