গহিন বনে ভাসমান বিওপি পরিদর্শনে বিজিবি ডিজি

আপডেট: 07:47:34 22/01/2020



img

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : বুধবার দুপুরে বিজিবির খুলনা সেক্টরের রিভারাইন বর্ডার গার্ড কোম্পানির অধীনস্থ কাঁচিকাটা ভাসমান বিওপি পরিদর্শন করেছেন বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম।
পরিদর্শনকালে তিনি বলেন, সুন্দরবনে র‌্যাবের তৎপরতার কারণে দস্যুতা অনেক কমে গেছে। তাদের কাছে অনেক দস্যু বাহিনী আত্মসমর্পণ করেছে। বর্তমান সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টায় বিজিবির এয়ার উইং সৃজিত হয়েছে এবং দুটি হেলিকপ্টার কেনা হয়েছে। এই হেলিকপ্টারের মাধ্যমে দুর্গম বিওপিগুলোকে বিভিন্নভাবে সহায়তা প্রদান করা আরো সহজ হবে।
তিনি বলেন, জলসীমান্তের সার্বভৌমত্ব রক্ষা এবং সুন্দরবন ও সেন্টমার্টিনসহ বাংলাদেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে আগ্রাসনরোধে নজরদারি বৃদ্ধি, নিজস্ব জল সীমানায় আধিপত্য বিস্তার ও অপারেশনাল সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য বিজিবির সাংগাঠনিক কাঠামোতে চারটি হাইস্পিড ইঞ্জিন বোট, দুটি ফাস্ট ক্রাফট ও একটি লজিস্টিক শিপ ক্রয় প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এতে বিওপিসমূহের অপারেশনাল দক্ষতা ও প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা বর্তমানের চেয়ে অনেকাংশে বাড়বে।
পরিদর্শনকালে বিজিবি খুলনা সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো. আরশাদুজ্জামান খান, ১৭ বিজিবির অধিনায়ক প্রমুখ ছিলেন।
বিজিবি সূত্রে জানা যায়, চোরাকারবারিরা নৌ-পথকেও বেছে নিচ্ছে। তাছাড়া বনদস্যু ও জলদস্যুরা সুন্দরবনসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জলসীমান্তে নানা ধরনের অপকর্মে লিপ্ত হচ্ছে। এই বিস্তৃত জলসীমায় বিজিবির পর্যাপ্ত জলযান, ভাসমান বিওপি এবং জনবল না থাকায় সুন্দরবনের গহিন অরণ্যের জলসীমান্তে যথাযথ নজরদারি ও অপারেশন কার্যক্রম পরিচালনায় ব্যাঘাত ঘটছে। জলসীমায় সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিজিবি কাজ করে যাচ্ছে। অদূর ভবিষ্যতে এই অঞ্চলে আরো দুটি ভাসমান বিওপি স্থাপন করা হবে। মহাপরিচালকের এই পরিদর্শনের মাধ্যমে প্রস্তাবনাধীন দুটি নতুন ভাসমান বিওপি স্থাপনের জন্য স্থান নির্বাচনের কাজ সম্পন্ন হলো।

আরও পড়ুন