ক্ষমা চাইলেন পলাতক প্রেসিডেন্ট গনি

আপডেট: 04:05:53 09/09/2021



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক: তালেবান কাবুলের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যাওয়ার পর দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া আফগানিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।
বুধবার টুইটারে পোস্ট করা এক বিবৃতিতে তার সরকারের আকস্মিক পতনের জন্য ক্ষমা চাইলেও নিজের সঙ্গে কোটি কোটি ডলার নিয়ে যাওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন তিনি।
তিনি কাবুলে থাকলে শহরটিতে ‘১৯৯০ এর দশকের গৃহযুদ্ধের মতো রাস্তায় রাস্তায় ভয়াবহ লড়াই’ শুরু হওয়ার ঝুঁকি আছে, এমন সতর্কতা জানিয়ে তার নিরাপত্তা টিম তাকে শহরটি ছাড়ার পরামর্শ দেয় আর তাদের আহ্বানেই তিনি দেশ ছেড়ে যান বলে জানিয়েছেন গনি।
“কাবুল ত্যাগ করা আমার জীবনের সবচেয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত ছিল, কিন্তু বন্দুকগুলোকে নীরব রাখা এবং কাবুলকে ও তার ৬০ লাখ নাগরিককে রক্ষার করার এটিই একমাত্র পথ ছিল বলে আমি বিশ্বাস করি,” বলেছেন তিনি।
দেশ ছেড়ে চলের যাওয়ার পরপরই সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে যে বার্তা পাঠিয়েছিলেন গনি এ বিবৃতিতেও মোটামুটি ওই কথাই প্রতিধ্বনিত হয়েছে। ওই বার্তা পাঠানোর পর মিত্ররা তাকে বিশ্বাসঘাতকতার জন্য অভিযুক্ত করে তার বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছিল।
বিশ্ব ব্যাংকের সাবেক কর্মকর্তা গনি দুটি বিতর্কিত নির্বাচনে জিতে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন। ওই নির্বাচনগুলোতে কারচুপি হয়েছিল বলে ব্যাপক অভিযোগ আছে।
দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় তিনি সঙ্গে নগদ কোটি কোটি ডলার নিয়ে গেছেন- এমন প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে এগুলোকে ‘সম্পূর্ণ ও সুনিশ্চিতভাবে মিথ্যা’ বলে অভিহিত করেছেন তিনি।
“দুর্নীতি প্লেগের মতো যা কয়েক দশক ধরে আমাদের দেশকে পঙ্গু করে রেখেছে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই আমার প্রচেষ্টার একটি কেন্দ্রীয় অংশ ছিল,” বলেছেন তিনি।
তিনি ও তার লেবাননি বংশোদ্ভূত স্ত্রী ‘ব্যক্তিগত আর্থিক বিষয়েও অত্যন্ত সতর্ক’ ছিলেন বলে দাবি করেছেন গনি।
গত ৪০ বছরেরও বেশি সময় ধরে তাদের দেশে চলা যুদ্ধের মধ্যে আফগানরা যে ত্যাগ স্বীকার করেছেন তার জন্য তাদের প্রশংসা করেছেন গনি।
“স্থিতিশীলতা ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত না করে আমার নিজের অধ্যায় পূর্বসূরিদের মতোই শোচনীয়ভাবে শেষ হওয়া অত্যন্ত দুঃখজনক। আমি এটি অন্যভাবে শেষ করতে পারিনি বলে আফগান জনগণের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী,” বলেছেন তিনি।
সূত্র: রয়টার্স, বিডিনিউজ

আরও পড়ুন