কুষ্টিয়ায় ছয় খুনির যাবজ্জীবন

আপডেট: 11:55:06 12/09/2021



img

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: ১২ বছর আগে কুষ্টিয়ায় মাইক্রোবাস চালক কাবিজুর রহমান (৪০) হত্যামামলায় ছয় ছিনতাইকারীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।
আজ রোববার দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের (১) বিচারক তাজুল ইসলাম এই রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণাকালে কাওছার আলী নামে এক আসামি উপস্থিত ছিলেন। অন্য পাঁচজন পলাতক রয়েছেন।
সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- ঝিনাইদহের স্বরূপদহ গ্রামের বাসিন্দা রজব আলী জোয়াদ্দারের ছেলে মানিক জোয়াদ্দার (৩৭), কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ইশালমারী গ্রামের হাসান আলীর ছেলে কোরবান আলী (৪৭), সদর উপজেলার বাহির বোয়ালদহ গ্রামের আফিল উদ্দিন সর্দারের ছেলে আনোয়ার হোসেন ওরফে আনার (৫২), চরসাদিপুর গ্রামের নুজদার সেখের ছেলে সোহান (৩৭), মাগুরা জেলার হাফিজুর মোল্লার ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন মান্না ওরফে সাগর (৩৭) এবং আদালতে উপস্থিত আলমডাঙ্গা উপজেলার হাটবোয়ালিয়া গ্রামের নফর আলী শাহের ছেলে কাওছার আলী (৪০)।
মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালের ২৮ জুলাই রাত সাড়ে তিনটার দিকে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আইলচারা গ্রামের স্টিল ব্রিজ এলাকায় মাইক্রোচালক কাবিজুর রহমানকে গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসবোধ ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন করে আসামিরা। পরে তারা মাইক্রোবাসটি নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই মিরপুর উপজেলার পুটিমারি গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে আব্দুর রউফ ২৯ জুলাই অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে কুষ্টিয়া সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।
মামলার তদন্ত শেষে ২০১০ সালে ২৩ সেপ্টেম্বর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আজিজুল হক সাতজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।
কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি অ্যাড. অনুপকুমার নন্দী জানান, আদালত দীর্ঘ সাক্ষ্য-শুনানি শেষে ছয় আসামির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাদের যাবজ্জাীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন। ছলেমান নামের এক আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস দেন আদালত।

আরও পড়ুন