কুরবানির পশুহাট বড় ফাঁকা স্থানে করার নির্দেশনা

আপডেট: 04:06:25 10/07/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : আসন্ন কুরবানির পশুহাট বড় ফাঁকা স্থানে করার ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে ‘করোনাভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে গঠিত যশোর জেলা কমিটি’র জরুরি সভায়।
আজ সকাল দশটায় স্থানীয় সার্কিট হাউজে যশোরের নবাগত জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন করোনা প্রতিরোধে যশোরের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল।
সভা শেষে যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন সুবর্ণভূমিকে জানান, কুরবানি ঈদ উপলক্ষে যশোরের পশুহাটগুলো তুলনামূলক বড় ফাঁকা স্থানে করা যায় কি-না সেই বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন সচিব ড. আবু হেনা।
এছাড়া করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে মসজিদের ইমামদের মাধ্যমে স্বাস্থ্যবিধি প্রচারের বিষয়টি সভায় গুরুত্ব পায়। এই ক্ষেত্রে ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও ইমাম পরিষদকে কাজে লাগানো হবে।
সভায় চলমান লকডাউন প্রক্রিয়া আরো কার্যকরভাবে বাস্তবায়নের জন্য পর্যাপ্ত স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগ করে আরো বেশি টিম গঠনের কথা বলা হয়।
যশোর জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন স্থাপন ও উন্নতকরণের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরা হয় সভায়। সচিব ড. আবু হেনাকে এই বিষয়ে দ্রুত কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের অনুরোধ করা হয় সভা থেকে। প্রতিরক্ষা সচিব বিষয়টি নিয়ে কাজ করবেন বলে সভাকে অবহিত করেন।
একই সঙ্গে তিনি সরকারি ত্রাণ বিতরণে মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদারের আহ্বান জানান। আর যশোরের গদখালী অঞ্চলের ফুলচাষিরা যাতে করোনাকালীন মন্দায় অন্য কোনো দিকে ঝুঁকে না পড়েন, সেই ব্যাপারেও সজাগ থাকার অনুরোধ করেন জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের।
আজকের সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মো. আশরাফ হোসেন, করোনাকালীন পরিস্থিতিতে যশোর জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা লে. কর্নেল নিয়ামুল হালিম খান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপকুমার রায়, জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার উপপরিচালক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন যশোর শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. এমএ বাশার, মেডিকেল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টরা।

আরও পড়ুন