এক বিচারকের আদালত বর্জনের সিদ্ধান্ত আইনজীবীদের

আপডেট: 09:46:47 29/09/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালত বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে আইনজীবী সমিতি। এ আদালতের বিচারককে প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত বিচারিক কোনো কার্যক্রমেও অংশ নেবেন না আইনজীবীরা।
মঙ্গলবার জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে, তাদের ভাষায়, অসৌজন্যমূলক আচরণের প্রতিবাদে বিশেষ সাধারণ সভায় এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
এ ঘটনার পর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে বিচারক প্রথম আদালতের বিচাককে দেওয়া দায়িত্ব প্রত্যাহার করে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ চতুর্থ আদালতের বিচারককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
দুপুরে জেলা আইনজীবী সমিতির এক নম্বর ভবন মিলনায়তনে বিশেষ সাধারণ সভা এবং অ্যাটর্নি জেনারেল মাহাবুবে আলমের মৃত্যুতে স্মরণসভা ও দোয়া মহফিল হয়। এ সভায় সভাপতিত্ব করেন আইনজীবী সমিতির সভাপতি এম ইদ্রিস আলী।
এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র আইনজীবী নজরুল ইসলাম, পিপি বাহাউদ্দিন ইকবাল, দেবাশীষ দাস, মাহাবুব আলম বাচ্চু, কাজী ফরিদুল ইসলাম, আবু মোর্ত্তজা ছোট, শাহানুর আলম শাহিন, আমিনুর রহমান, গাজী আব্দুল কাদির, আরএম মঈনুল হক খান ময়না, রুহিন বালুজ প্রমুখ।
সভা পরিচালনা করেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক এমএ গফুর।
বিশেষ সাধারণ সভায় বলা হয়, যশোর জেলা আইনজীবী সমিতি বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের মৃত্যুতে আলোচনা সভা ও দোয়া মহফিলের আয়োজন করে। এমন কর্মসূচির জেলা ও দায়রা জজকে অবহিত করার রেওয়াজ রয়েছে। সেই অনুযায়ী এ দিন সকালে সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জেলা ও দায়রা জজ আদালতের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রথম আদালতের বিচাকরকে সভার বিষয়টি অবহিত করার জন্য সাক্ষাতের অনুমতি চান। কিন্তু বিচারক তাদের সঙ্গে ‘সাক্ষাৎ করবেন না’ বলে পেশকারকে জানিয়ে দেন।
বিষয়টি আইনজীবীদের মধ্যে জানাজানি হলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এই পরিস্থিতিতে সমিতির বিশেষ সাধারণ সভা আহ্বান করা হয়। এ সভায় সর্বসম্মতিতে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক আব্দুল হামিদের আদালত বর্জনের সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া সিদ্ধান্ত হয়, যশোর থেকে তাকে প্রত্যাহার করে না নেওয়া পর্যন্ত এ আদালতের কোনো বিচারিক কার্যক্রমে অংশ নেবেন না আইনজীবীরা।

আরও পড়ুন