ইসমাত আরা সাদেকের মরদেহ আনা হবে কেশবপুরে

আপডেট: 03:30:21 22/01/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেকের মরদেহ তার নির্বাচনি এলাকা কেশবপুরে আনতে চান দলীয় নেতাকর্মীরা। তার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরই দলের নেতাকর্মীরা পার্টি অফিসে জমায়েত হচ্ছেন। তার মরদেহ কেশবপুরে আনা হবে কিনা তা তারা জানার চেষ্টা করছেন।
মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সাবেক প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে যশোরে নিজ নির্বাচনি এলাকায়।
এদিকে ইসমাত আরার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।
কেশবপুর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি তপন কুমার ঘোষ মন্টু বলেন, ‘আজ সকালেই তার (ইসমত আরা সাদেক) মৃত্যুর খবর পাই। এরপর আমরা দলীয় কার্যালয়ে সমবেত হই। দূর-দূরান্ত থেকে নেতাকর্মীরা পার্টি অফিসে আসছেন, খোঁজখবর নিচ্ছেন। তার মরদেহ কেশবপুরে আনা হবে কি না জানতে চাচ্ছেন।’
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা হেলিকপ্টারের মাধ্যমে তার মরদেহ কেশবপুরে আনার চেষ্টা করছি। শুনেছি, আজ বিকালে সংসদ ভবনে তার নামাজে জানাজা হবে।’
ইসমত আরার মরদেহ কখন আনা সম্ভব হবে এখনও জানাতে না পারলেও তপন কুমার বলেন, ‘কেশবপুর ডিগ্রি কলেজ মাঠে একটি হেলিপ্যাড রয়েছে। আমরা সেখানেই তার নামাজে জানাজা সম্পন্নের জন্য ভাবছি।’
এদিকে ইসমত আরার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপি কেশবপুর পৌর শাখার সভাপতি আব্দুস সামাদ বিশ্বাস। তিনি বলেন, ‘ইসমাত আরা খুবই সৎ মানুষ ছিলেন। তার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। কেশবপুরে তার মরদেহ আনা হবে কিনা- নিশ্চিত নই। আনা হলে তার জানাজায় আমরা শরিক হবো।’
সাবেক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন।
শোক বার্তায় অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘ইসমত আরা সাদেক ছিলেন একজন নেতৃত্ব গুণসম্পন্ন বিদুষী নারী। তিনি মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ ও চেতনা বাস্তবায়নে ছিলেন সদা তৎপর। তার প্রয়াত স্বামী সাবেক শিক্ষামন্ত্রী এ এস এইচ কে সাদেকের মতো তিনিও যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা, বিকাশ ও উন্নয়ন থেকে শুরু করে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেছেন।’
ইসমাত আরা সাদেক ১৯৪২ সালের ১২ ডিসেম্বর বগুড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৫৬ সালে বগুড়া ভি এম গার্লস স্কুল থেকে এসএসসি ও ১৯৫৮ সালে ঢাকার হলিক্রস কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। ১৯৬০ সালে তিনি ঢাকার ইডেন কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।
১৯৯২ সালে তিনি ও তার স্বামী এ এস এইচ কে সাদেক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগ দেন। ১৯৯৬ সালে তিনি কেশবপুর মহিলা আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা করেন ও তখন থেকে কার্যনির্বাহী কমিটির ১ নম্বর সদস্য হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করছেন। ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ মহিলা কল্যাণ পরিষদের সদস্য ছিলেন।
ইসমত আরা দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোর-৬ (কেশবপুর) নির্বাচনি এলাকা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালের ১২ জানুয়ারি নতুন সরকার গঠিত হলে তাকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী করা হয়। পরবর্তী সময়ে ২০১৪ সালের ১৫ জানুয়ারি তাকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেও মন্ত্রিসভায় স্থান পাননি।

আরও পড়ুন