অব্যবস্থাপনায় শেষ হলো ‘সুলতানমেলা’

আপডেট: 09:50:58 04/01/2018



img

মৌসুমী নিলু, নড়াইল : নানা অনিয়ম ও অব্যবস্থায় শেষ হলো  ‘সুলতানমেলা’।
সুলতানমেলার দাওয়াতপত্র অনুযায়ী সমাপনী অনুষ্ঠান বিকেল তিনটায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সন্ধ্যা পর্যন্ত অতিথি আসনগুলো শূন্য ছিল। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার সন্ধ্যা ৬টা ২১ মিনিটে মেলা চত্বরে আসেন। প্রায় সাতটা পর্যন্ত চলে অতিথি বরণপর্ব। এতে মেলায় আগত সুলতানভক্ত ও দর্শকরা অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেন। সংবাদ সংগ্রহ নিয়েও বিপাকে পড়েন গণমাধ্যমকর্মীরা।
এছাড়া সাংবাদিকদের জন্য মেলা প্রাঙ্গণে বসার তেমন ব্যবস্থাও ছিল অপ্রতূল। জেলায় ৫০ জনের বেশি নিয়মিত সাংবাদিক থাকলেও মেলা কর্তৃপক্ষ তাদের জন্য ছোট একটি টেবিল ও দুটি চেয়ারের ব্যবস্থা রাখেন বলে জানিয়েছেন সংবাদকর্মীরা।
মেলা কর্তৃপক্ষসহ বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, মন্ত্রী দুপুর থেকেই নড়াইলে অবস্থান করছিলেন। তবুও নির্ধারিত সময়ের অনেক পরে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এ বিষয়ে সুলতানভক্তসহ মেলায় আসা দর্শকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।
এদিকে, বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় নড়াইলের সুলতান মঞ্চে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার ‘সুলতান পদক’ প্রদান করেন। এ বছর ‘সুলতান স্বর্ণ পদক’ পেয়েছেন ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী। তবে প্রিয়ভাষিণী অসুস্থ থাকায় তার পক্ষে পদক গ্রহণ করেন শিল্পীর ভাই সৈয়দ হাসান শিবলী।
অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক এমদাদুল হক চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম (অতিরিক্ত ডিআইজি), সুলতান ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব আশিকুর রহমান মিকু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবাসচন্দ্র বোস, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অধ্যাপক ড. সুশান্ত অধিকারী প্রমুখ।
এর আগে গত ২৬ ডিসেম্বর বিকেলে নড়াইলের সুলতান মঞ্চ চত্বরে বেলুন উড়িয়ে মেলা উদ্বোধন করেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া।
বরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের ৯৩তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে জেলা প্রশাসন ও এস এম সুলতান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এবং সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স ও মৌসুমী ইন্ডাস্ট্রিজ কোম্পানির পৃষ্ঠপোষকতায় দশদিনের এ মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
১০ আগস্ট শিল্পীর জন্মদিন হলেও শোকের মাস এবং বর্ষার কারণে ২০০৩ সাল থেকে শীতকালে ‘সুলতানমেলা’ অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।
এসএম সুলতান ১৯২৪ সালের ১০ আগস্ট নড়াইলের মাছিমদিয়ায় বাবা মেছের আলী ও মা মাজু বিবির ঘরে জন্মগ্রহণ করেন। অসুস্থ অবস্থায় ১৯৯৪ সালের ১০ অক্টোবর যশোর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।