১৪ শর্তে সিলেটে সমাবেশের অনুমতি

আপডেট: 02:17:36 22/10/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : দুই দফা আবেদন নাকচের পর অবশেষে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে সিলেটে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে মহানগর পুলিশ (এসএমপি)। তবে, এ জন্য ঐক্যফ্রন্টকে ১৪টি শর্ত দেওয়া হয়েছে।
রোববার জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদককে লিখিতভাবে এ অনুমোদনের কথা জানান নগর পুলিশের বিশেষ শাখার উপকমিশনার। অর্থাৎ, সব শর্ত পালন করে আগামী ২৪ অক্টোবর সিলেট রেজিস্ট্রারি মাঠে প্রথমবারের মতো সমাবেশ করতে পারবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে দেওয়া শর্ত
১. অনুষ্ঠানের স্থলে পর্যাপ্ত সংখ্যক নিজস্ব পুরুষ-মহিলা স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করতে হবে।
২. রাষ্ট্রবিরোধী কোনো ধরনের বক্তব্য ও বিবৃতি দেওয়া যাবে না।
৩. সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করে, কিংবা ধর্মীয় অনুভূতি বা মূল্যবোধের ওপর আঘাত হানে- এ ধরনের বক্তব্য ও বিবৃতি প্রদান বা কোনো ব্যানার ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করা যাবে না।
৪. জনসাধারণের চলাচলের রাস্তায় কোনো প্রকার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না।
৫. নির্ধারিত স্থানে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে (দুইটা থেকে পাঁচটা) কর্মসূচি সম্পন্ন করতে হবে।
৬. আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটায়, জানমালের ক্ষয়ক্ষতি করার আশঙ্কা সৃষ্টি করে- এ ধরনের বক্তব্য প্রদান করা যাবে না বা এরূপ কথাসম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করা যাবে না।
৭. মাইক, শব্দযন্ত্র ব্যবহারের ফলে আশপাশের লোকজনের যাতে কোনো ধরনের অসুবিধা না হয় তা নিশ্চিত করতে হবে।
৮. ব্যাগ, সিগারেট, দিয়াশলাই, লাইটার ইত্যাদি নিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশ করা যাবে না।
৯. কোনো ধরনের লাঠিসোঁটা, ধারালো অস্ত্র কিংবা লাঠিসংযুক্ত ব্যানার, ফেস্টুন ইত্যাদি বহন করা যাবে না।
১০. কোনো ধরনের বৈধ অস্ত্র সঙ্গে আনা/বহন করা যাবে না।
১১. সুরমা পয়েন্ট থেকে তালতলা পয়েন্ট পর্যন্ত রাস্তার উভয় পাশে কোনো গাড়ি পার্কিং করা যাবে না।
১২. অনুষ্ঠানস্থলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে আয়োজনকারী কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে।
১৩. এসব শর্তাবলীর যেকোনো একটি বা একাধিক শর্ত লঙ্ঘন বা অমান্য করা হলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
১৪. কর্তৃপক্ষ কোনো কারণ দর্শানো ব্যতিরেকে উক্ত অনুমতি আদেশ বাতিল করার ক্ষমতা সংরক্ষণ করে।
এসব শর্তের কথা স্বীকার করেছেন সিলেট পুলিশের কমিশনার গোলাম কিবরিয়া।
এর আগে ২৩ অক্টোবর সিলেটে সমাবেশের অনুমতি চায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। কিন্তু নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে তাদের অনুমতি দেয়নি সিলেট পুলিশ। পরে আবার তারা ২৪ অক্টোবর সমাবেশ করার জন্য অনুমতি চায়। প্রায় দুই ঘণ্টা পর তাদের জানানো হয় অনুমতি দেওয়া হবে না।
আজ সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে সমাবেশের অনুমতি না দেওয়ার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করা হয়। রিটে সমাবেশের অনুমতি না দেওয়া কেনো অবৈধ ও বেআইনি হবে না- এই মর্মে রুল জারির আর্জি জানানো হয়েছে। হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় সিলেট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয়ক আলী আহমেদ এ রিট করেন। পরে দুপুরে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে সমাবেশের অনুমতি দিয়ে এই চিঠি পাঠানো হয়।
এদিকে, সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের আসন্ন সফর সফল করতে দলীয় নেতাকর্মীদের তৎপর থাকার আহ্বান জানিয়েছে সিলেট মহানগর বিএনপি। আগামী ২৪ অক্টোবর হজরত শাহজালাল (রহ.)-এর মাজার জিয়ারত ও সমাবেশ দিয়ে ঐক্যফ্রন্টের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হবে বলে জোট সূত্রে জানা যায়।
গতকাল এক সভায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আসন্ন সমাবেশ প্রসঙ্গে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী বলেন, ‘২৪ অক্টোবর জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের সিলেট সফর ঐক্যবদ্ধভাবে সফল করতে হবে। সিলেট বিএনপি এখন যেকোনো সময়ের চেয়ে ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী। সব ভেদাভেদ ও বিভক্তি ভুলে বাকশালী সরকারের পতন ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে সবাইকে শামিল হতে হবে।’
সূত্র : এনটিভি