উপচে পড়া ভিড়ে প্রাণ ফিরে পেয়েছে গুড়পুকুরের মেলা

আপডেট: 06:39:27 17/10/2017



img

আব্দুস সামাদ, সাতক্ষীরা : ক্রেতা ও দর্শণার্থীদের উপচে পড়া ভিড়ে প্রাণ ফিরে পেয়েছে সাতক্ষীরার ঐতিহ্যবাহী গুড়পুকুরে মেলা। সেই সঙ্গে জমে উঠেছে তিনশ’ বছরের ঐতিহ্যবাহী এই আয়োজন।
শিশুর হাতে বেলুন বাঁশি, তরুণীর হাতে চুড়ি, খোঁপায় রঙিন ফুল। বৃদ্ধের কাঁধে গাছের কলম, গৃহিণীর কাঁধে মাটির কলস, কাঠের বাসন- গুড়পুকুরের মেলার সেই পুরনো দিন হয়তো নেই। তবু নতুন করে যেন প্রাণ পেয়েছে এ মেলা। তবে অনুকূল পরিবেশ পাওয়ায় সমহিমায় ফিরে আসছে মেলা।
এবার মেলার অন্যতম আকর্ষণ ইলিশ উঠেছিল দর্শণার্থীদের হাতে হাতে। দাম নাগালের মধ্যে আসায় মাঝে হরদম বিকিকিনি হয়েছে জাতীয় মাছ। বিক্রেতারা মাইকিংও করে বিক্রি করেছেন ইলিশ। মৎস্য আইন অনুযায়ী এখন ইলিশ বিক্রি আপাতত বন্ধ রয়েছে।
তিনশ’ বছরের ঐতিহ্যবাহী গুড়পুকুরের মেলা এবছর আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় গত ১৮ সেপ্টেম্বর। চলবে মাসব্যাপী। তবে পরিবেশ ও ক্রেতাদের চাহিদার ভিত্তিতে মেলার সময় বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।
সরেজমিনে দেখা যায়, প্রতিদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মেলায় ভিড় একটু কম থাকলেও দুপুর গড়িয়ে বিকেল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভীড় হচ্ছে। তিল ধারণের ঠাঁই থাকে না মেলা প্রাঙ্গণে।
মেলাকে ঘিরে আগে যাত্রা, সার্কাস, পুতুলনাচ, বায়স্কোপসহ নানা ধরনের বিনোদনের আয়োজন থাকলেও এবার তা নেই।
একসময় কলকাতা ও মুর্শিদাবাদ থেকে ব্যবসায়ীরা আসতেন মেলায়। জেলার মানুষ এক মেলা থেকে আরেক মেলা পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতেন।
২০০৩ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর মেলা চলাকালে সন্ত্রাসীরা একটি সিনেমা হল ও সার্কাস প্যান্ডেলে বোমা হামলা করে। এতে তিনজন নিহত হন। আহত হন কয়েকশ’ মানুষ। এরপর থেকে কয়েক বছর বন্ধ থাকার পর ২০০৯ সাল থেকে সীমিত পরিসরে ফের শুরু হয় মেলা। সাতক্ষীরা শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে পৌর দীঘির পাড়ে নান্দনিক রূপ আর সৌন্দর্যের পেখম খুলে বসেছে গুড়পুকুরের মেলা।
দর্শনার্থীদের চিত্তবিনোদনে মেলায় নাগরদোলা, নৌকা, ট্রেন ভ্রমণসহ রয়েছে নানা আয়োজন। শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী, যুব-বৃদ্ধ সকলেই আনন্দে মাতোয়ারা মেলায় এসে।