যশোর-ঝিনাইদহ সড়কে ‘ডাকাতি’, আহত ৭

আপডেট: 04:06:22 21/10/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : আজ রোববার ভোরে যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের চুড়ামনকাটি বাজারের কাছে যানবাহনে গণডাকাতি হয়েছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, ডাকাতদের হাতে সাতজন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুজন হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর দুপুরে নিজ জেলা রাজশাহীতে ফিরে গেছেন।
তবে যশোর কোতয়ালী পুলিশ বলছে, ঘটনাটি হয়তো ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের মধ্যে।
ডাকাতদের হাতে আহতদের মধ্যে একজন মতিন (৪৮)। তিনি আলু ব্যবসায়ী। অন্যজন ট্রাকচালক আনজুরা। মতিন রাজশাহীন তানোর উপজেলার ভদ্রখন্দ গ্রামের মৃত আবদুর রহমানের ছেলে। আর আনজুরা একই জেলার বোয়ালিয়া থানার হেতেমখাঁ এলাকার মৃত মকছেদ আলীর ছেলে।
তারা বলছেন, শনিবার দিবাগত রাতে একটি ট্রাকে আলুবোঝাই করে খুলনা যাচ্ছিলেন। ভোর সাড়ে চারটার দিকে তারা যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের চুড়ামনকাটি বাজারের কাছাকাছি আসেন। ডাকাতরা রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে ডাকাতি করছিল। এসময় রাস্তায় গাড়ির লম্বা লাইন পড়ে যায়। গাড়ি থেকে নেমে জ্যামের কারণ দেখতে গেলে  ১০-১২ জনের সশস্ত্র ডাকাতদল কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাদেরকে মারপিট করে। এসময় মতিনের কাছে দুটি ব্যাগে থাকা এক লাখ ৪৮ হাজার টাকা কেড়ে নেয় ডাকাতরা। এভাবে ১০-১২টি বাস এবং ট্রাকের যাত্রীদের কাছ থেকে ডাকাতরা টাকা ও মালামাল ছিনিয়ে নেয় বলে তাদের দাবি।
তারা বলছেন, এঘটনার আঘাঘণ্টা পর পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশের সহযোগিতায় রাস্তা থেকে গাছের গুঁড়ি সরালে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এসময় স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।
হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডের সিনিয়র নার্স হাসিনা পারভীন একই বিভাগের ডাক্তার মনিরুজ্জামান লর্ডের উদ্ধৃতি দিয়ে সুবর্ণভূমিকে বলেন, আহত মতিন ও আনজুরার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাদের অবস্থা গুরুতর। তারপরও বাড়ি দূরে হওয়ায় অ্যাম্বুলেন্সে করে তারা রাজশাহীতে চলে গেছেন।
কোতয়ালী থানার ওসি অপূর্ব হাসান সুবর্ণভূমিকে বলেন, ঘটনাটি তার এলাকার মধ্যে নয়। তিনি ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থানায় যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন।
ডাকাতির ঘটনায় প্রাথমিক চিকিৎসা নেওয়া অন্য আহতরা হলেন, আনিসুর রহমান, রবিউল ইসলাম, মোহাম্মদ রনি, রওশন আরা ও জেসমিন। এদের মধ্যে কয়েকজন কে লাইন পরিবহনের একটি বাসের যাত্রী।

আরও পড়ুন