সত্য মৈত্রের মৃত্যুতে যশোরে শোকসভা

আপডেট: 02:55:18 22/04/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের উপদেষ্টা সত্য মৈত্রের মৃত্যুতে যশোরে শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কমিউনিস্ট নেতা সত্য মৈত্রকে ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের শেষ প্রতিনিধি বলা হচ্ছে।
শনিবার বিকেলে যশোর শহরের এক নম্বর আইনজীবী সমিতি ভবনে শোকসভাটি অনুষ্ঠিত হয়। শোকসভা বাস্তবায়ন কমিটি এর আয়োজক। এতে সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক আফসার আলী।
গত ৮ এপ্রিল মারা যান সত্য মৈত্র। ৮০ বছরেরও বেশি সময় ধরে কমিউনিস্ট রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন তিনি।
শোকসভায় প্রয়াত সত্য মৈত্রের স্মৃতিচারণ করে কথা বলেন ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন নান্নু, প্রবীণ রাজনীতিক লেখক গবেষক আমজাদ হোসেন, ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সভাপতি ইকবাল কবির জাহিদ, সিপিবি যশোরের সভাপতি ও শোকসভা কমিটির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন, বাসদ (মার্কসবাদী) যশোরের সমন্বয়ক হাচিনুর রহমান, অধ্যক্ষ পাভেল চৌধুরী, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদের জেলা সমন্বয়ক শাহাজাহান আলী, শহীদ স্মৃতি রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক মুস্তাফিজুর রহমান কাবুল, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের জেলা সদস্য কামাল হাসান পলাশ, বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক দিলীপ রায় প্রমুখ।
কমিউনিস্ট লীগের জেলা সম্পাদক তসলিম-উর-রহমানের পরিচালনায় শোক সভার শুরুতে সত্য মৈত্রের সংক্ষিপ্ত জীবনালেখ্য পাঠ করেন বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি পলাশ বিশ্বাস।
শোকসভায় বক্তারা বলেন, রাজনীতির বাইরে সত্য মৈত্রের কোনো ব্যক্তি জীবন ছিল না। সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেও তিনি ভোগবাদের স্রোতে গা না ভাসিয়ে সারাজীবন সমাজতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন। সপ্তম শ্রেণিতে পড়ার সময় রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন তিনি। একাদশ শ্রেণিতে পড়ার সময় ইংরেজ পুলিশের হাতে আটক হন। এরপর ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের কারণে একাধিবার তাকে কারাবরণ করতে হয়েছে। তিনি কখনো হতাশ হননি। তিনি শ্রমিকশ্রেণি ও কৃষকের স্বার্থের দৃষ্টিতে সমাজ দেখেছেন। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত তিনি কমিউনিস্ট আদর্শে বিশ্বাসী থেকে মার্কসবাদে পতাকা ঊর্ধ্বে তুলে ধরার লড়াই চালিয়ে গেছেন।

আরও পড়ুন