মানব পাচারের সার্ভাইভারদের সেলাইমেশিন দিলো রামনগর সিটিসি

আপডেট: 08:17:52 09/08/2017



img

স্টাফ রিপোর্টার : মানব পাচারের শিকার দুই সার্ভাইভারকে অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বী হওয়ার জন্য দুটো সেলাইমেশিন প্রদান করেছে যশোর সদরের রামনগর ইউনিয়ন মানব পাচার প্রতিরোধ কমিটি (সিটিসি)। 

বুধবার বিকেলে ইউনিয়ন সিটিসি-এর সভাপতি এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাজনীন নাহার আলমগীর দুই সার্ভাইভারের কাছে সেলাইমেশিন দুটো হস্তান্তর করেন। এসময় তিনি প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন যে তার ইউনিয়নে মানব পাচারের শিকার আরো যদি কেউ থাকে তাদেরকেও সহযোগিতার চেষ্টা করা হবে।

চেয়ারম্যান নাজনীন নাহার আলমগীর বলেন, রাইটস যশোর-এর মাধ্যমে রামনগর ইউনিয়নে পাচারের সার্ভাইভারদের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। এরা সাধারণত সমাজে অবহেলিত ও অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল। সে কারণে ইউনিয়ন সিটিসির সভায় পরিষদের নিজস্ব অর্থায়নে দুইজন সার্ভাইভারকে সেলাই মেশিন দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এটি ব্যবহার করে তারা যদি নিজেদের আর্থিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটাতে পারেন তাহলে তাদের উদ্যোগ সফল হবে বলে মনে করেন চেয়ারম্যান নাজনীন। 

সহযোগিতা পাওয়া সার্ভাইভাররা জানান, ভারতে পাচারের শিকার হওয়ার পর তারা গত বছর রাইটস যশোর-এর মাধ্যমে দেশে ফিরে আসেন। বর্তমানে তারা সমাজে মাথা উঁচু করে দাড়াতে চান। এজন্য অর্থনৈতিকভাবে সক্ষমতা অর্জন করা জরুরি। ইউনিয়ন পরিষদের এই সহযোগিতা পরিবারের অর্থনৈতিক দৈন্য কাটিয়ে উঠতে কাজে লাগাবেন বলে তারা প্রতিশ্রুতি দেন। 

ইউনিয়নের সচিব মিজানুর রহমান বলেন, তার ইউনিয়নে মানব পাচার প্রতিরোধ কমিটি খুব সক্রিয়। রাইটস যশোর-এর সহযোগিতায় সিটিসি নিয়মিত মিটিং করে এলাকার সার্বিক মানব পাচার পরিস্থিতির পর্যবেক্ষণ এবং সে অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। এলাকার মানুষকে মানব পাচার বিষয়ে সচেতন করার জন্য নিয়মিত কমিউনিটি মিটিং, স্কুল ক্যাম্পেইন, ডোর টু ডোর ক্যাম্পেইন করছে সিটিসি-এর সদস্যরা।

রাইটস যশোর-এর প্রোগ্রাম কোঅর্ডিনেটর এম হাসিবুল হাসান বলেন, রামনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে কমিটির সকল সদস্য পাচার প্রতিরোধে আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। পাচারের শিকার সার্ভাইভারদেরকে সাবলম্বী করতে তারা যে সহযোগিতা করলেন তা অন্যদের জন্যও দৃষ্টান্ত। 

সেলাইমেশিন প্রদান অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউপি মেম্বর খাদিজা পারভীন, মনোয়ারা জামান, রফিকুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম, জাকির হোসেন, ইকবাল হোসেন, আ. গফুর, রাইটস যশোর-এর প্রোগ্রাম অফিসার সরোয়ার হোসেন।  

 

আরও পড়ুন