ভবদহ পদযাত্রার দ্বিতীয় দিনে মানুষের ব্যাপক সাড়া

আপডেট: 06:56:21 17/11/2017



img

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি : ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটি টিআরএম বাস্তবায়নসহ ৫ দফা দাবিতে পদযাত্রা কর্মসূচির দ্বিতীয় দিন অতিবাহিত হয়েছে।
দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া থাকা সত্ত্বেও পদযাত্রায় মানুষের ব্যাপক সাড়া পড়ে। পদযাত্রা চলাকালে গ্রামের নারী-পুরুষ রাস্তার দুধারে দাড়িয়ে পদযাত্রায় অংশগ্রহণকারী নেতাকর্মীদের স্বাগত জানান।
শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে অভয়নগর উপজেলার মশিয়াহাটি থেকে দ্বিতীয়দিনের পদযাত্রা শুরু হয়।
যাত্রাপথে মণিরামপুর উপজেলার কালিবাড়ি বাজারে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এরপর মনোহরপুর ও কোনাকোলা বাজারে সমাবেশ করে শ্যামনগর বাজারে দুপুরের খাবারের জন্য বিরতি দেওয়া হয়।
বিরতি শেষে গোপালপুর বাজার, পোড়াডাঙ্গা মোড় ও হাজিরহাটে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
এসব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটির প্রধান উপদেষ্টা ইকবাল কবির জাহিদ, সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক রণজিত বাওয়ালী, সংগ্রাম কমিটির মণিরামপুর উপজেলা কমিটির আহবায়ক গাজী আব্দুল হামিদ, সংগ্রাম কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী বৈকুন্ঠ বিহারী রায়, সদস্য সচিব চৈতন্য পাল প্রমুখ।
পদযাত্রাটি হাজিরহাটে সমাবেশের পর নেবুগাতী হয়ে সুন্দলী ইউনিয়ন কাউন্সিলে রাত্রি যাপন করবে। 
শনিবার সকাল নয়টায় ফের যাত্রা শুরু হবে। 
প্রসঙ্গত, যশোরের ভবদহ অঞ্চলের জলাবদ্ধতার সমাধানে সামনের মাঘী পূর্ণিমার (৩১ জানুয়ারি) আগেই বিল কপালিয়ায় জোয়ারাধার (টিআরএম-টাইডাল রিভার ম্যানেজমেন্ট) বাস্তবায়নের দাবিতে চার দিনব্যাপী ভবদহ পদযাত্রা ১৬ নভেম্বর শুরু হয়। আগামী ১৯ নভেম্বর যশোরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এ পদযাত্রা শেষ হবে।
বিল কপালিয়ায় টিআরএম’র গৃহীত সিদ্ধান্ত অবিলম্বে বাস্তবায়ন, আমডাঙ্গা খাল সংস্কার, ভবদহ স্লুইসগেটের ২১ ও ৯ ভেন্টের মাঝ দিয়ে সরাসরি নদী সংযোগ; হরিহর, আপারভদ্রা ও বুড়িভদ্রায় জরুরিভিত্তিতে পুনঃখনন, জলাবদ্ধতা নিরসনে সংস্কার কাজে দুর্নীতির বিচার; এলাকার সকল নদী-খাল পুনরুদ্ধার ও অবমুক্ত এবং প্রবাহে প্রতিবন্ধক সকল পাটা, জাল, শেওলা অপসারণ; মানবিক বিপর্যয় রোধে খাদ্য-নিরাপত্তা ও চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ, ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা এবং অপরিকল্পিত ঘের নয়, পানিপ্রবাহে সকল বাধা উচ্ছেদ এবং ঘের সংক্রান্ত একটি সরকারি নীতিমালা প্রণয়নসহ ৫ দফা দাবিতে সংগ্রাম কমিটি দীর্ঘদিন আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে।

আরও পড়ুন