যশোরে সাংবাদিক নোভার আত্মহত্যা

আপডেট: 02:15:01 22/10/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : যশোরে সাংবাদিক দানিয়েল হাবিব অঞ্জন ওরফে নোভা খন্দকার আত্মহত্যা করেছেন। ঠিক কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করলেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
নোভা যশোর শহরের বেজপাড়া কবরস্থান এলাকার আহসান হাবিবের ছেলে। আজ সকাল নয়টার দিকে তাকে বাড়ির নির্মাণাধীন একটি ঘরের মধ্যে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায়। স্বজনদের কাছ থেকে খবর পেয়ে সকাল দশটার দিকে পুলিশ এসে লাশ মর্গে নেয়।
জয়তী সোসাইটির কর্মকর্তা বাবা আহসান হাবীব বলেন, ‘আজ সোমবার ভোরে ফজরের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে যায় নোভা। ফিরতে দেরি হওয়ায় তার বোন ঘর থেকে বের হয়ে বাড়ির মধ্যে নির্মাণাধীন ঘরের একপাশে নোভাকে ঝুলে থাকতে দেখে। পরে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়।
নিকটাত্মীয় কাজী মামুনুর রশিদ সুবর্ণভূমিকে জানান, কাজকর্ম না থাকায় দীর্ঘদিন ধরেই হতাশায় ভুগছিলেন নোভা। হয়তো এই কারণে তিনি আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন।
কোতয়ালী থানার এসআই শামীম সুবর্ণভূমিকে জানান, সকাল দশটার দিকে নির্মাণাধীন ঘরে গলায় গামছা দেওয়া অবস্থায় নোভার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। গলায় ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা এই পুলিশ কর্মকর্তার। তবু ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে না পাওয়া পর্যন্ত চূড়ান্ত কিছু বলতে রাজি নন তিনি।
বাবা আহসান হাবীব জানান, নোভা খন্দকারের স্ত্রী শম্পা ও নাজ্জার হাবিব নামে সাত বছর বয়সী একটি ছেলে আছে। ছেলেটি স্কুলে পড়ে। স্ত্রী-সন্তান পাবনায় থাকেন। সেখানে নোভার শ্বশুরবাড়ি। শম্পা একটি মাইক্রো ফাইন্যান্স কোম্পানিতে চাকরি করেন।
নোভার সাংবাদিক বন্ধুরা বলছেন, তিনি দীর্ঘদিন বেকার ছিলেন। মাঝে ঢাকায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে কাজ করলেও কোথাও থিতু হতে পারেননি। পরে যশোর চলে এসেও তিনি কোনো কাজ পাননি। তীব্র আর্থিক সংকট তাকে আত্মহত্যার দিকে টেনে নিয়ে গেছে বলে তারা মনে করছেন।
নোভা প্রেসক্লাব যশোরের সদস্য ছিলেন বেশ কয়েক বছর। এছাড়া তিনি সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের দপ্তর সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সাংবাদিক ইউনিয়নে সক্রিয় থাকাকালে তাকে সাংবাদিক শামছুর রহমান হত্যা মামলায় আসামি করা হয়। সেই মামলায় তিনি কিছুদিন হাজতবাসও করেন। তবে তার সংগঠন সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোর বরাবরই বলে আসছে, শামছুর রহমান হত্যা মামলায় রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে পাঁচ সাংবাদিককে আসামি করা হয়; যাদের মধ্যে নোভাও ছিলেন।
স্বজনরা জানান, আজ সোমবার বাদআছর নামাজে জানাজা শেষে বেজপাড়া কবরস্থানে নোভাকে দাফন করা হবে।
এদিকে নোভা খন্দকারের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শহিদ জয় ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুজ্জামান। তারা শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বিকেল সাড়ে তিনটায় নোভার মরদেহ সংগঠনের কার্যালয়ে আনা হবে। সেখানে তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানানো হবে।