চৌগাছায় চাকুরে ও ছাত্রীর আত্মহত্যা

আপডেট: 07:36:33 16/03/2018



img

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের চৌগাছায় টিপু সুলতান (৩০) নামে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের মাঠ সহকারী আত্মহত্যা করেছেন। একই দিনে সীমা খাতুন (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রীও একই পথ বেছে নেয়।
সহকর্মী আব্দুস সালাম জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পারিবারিক কলহে টিপু ঘাস নিধনের ওষুধ (পাউডার) খান। চিকিৎসার জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে রাত একটার দিকে তার মৃত্যু হয়।
টিপু সুলতান উপজেলার সুখপুকুরিয়া ইউনিয়নের বর্ণি গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাঈনুদ্দিন মেম্বারের ছেলে। তিনি ‘একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প’ ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সুখপুকুরিয়া ইউনিয়নের মাঠ সহকারী ছিলেন।
একই দিন উপজেলার স্বরুপদাহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী সীমা খাতুন ওরফে লিজা (১৬) পারিবারিক কলহে ঘাস নিধনের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। তাকে প্রথমে চৌগাছা হাসপাতাল, পরে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে গভীর রাতে সীমা মারা যায়। সে স্বরুপদাহ গ্রামের রওশন আলীর মেয়ে।
বাবা রওশন আলী জানান, বড় বোনের সঙ্গে জুতা নিয়ে কথাকাটাকাটির জেরে সীমা ঘাস মারা ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যা করে। সীমা তার চার মেয়ের মধ্যে মেজ।
ময়নাতদন্ত শেষে শুক্রবার দুপুরে উভয়ের মরদেহ নিজ নিজ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

আরও পড়ুন