বেনাপোলে পেট এক্স-রে করে মিললো সোনার বার

আপডেট: 12:41:39 15/12/2017



img

স্টাফ রিপোর্টার : ভারতে পাচারের সময় বেনাপোল নোম্যান্সল্যান্ড এলাকা থেকে দুটি সোনার বারসহ মোস্তাফিজুর রহমান (৪০) নামে এক যাত্রীকে আটক করেছেন কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। এ সময় তার সঙ্গে থাকা আরো তিন সোনা বহনকারী পালিয়ে যেতে সক্ষম হন।
বৃহস্পতিবার সকালে মোস্তাফিজুর রহমান নামের এ সোনা পাচারকারীকে আটকের পর এক্স-রের মাধ্যমে শনাক্ত করে পায়ুপথ থেকে বেলা ১১টার দিকে সোনার এই চালান আটক করা হয়।
আটক সোনা পাচারকারী মোস্তাফিজুর মুন্সিগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ি উপজেলার কোনাইসার গ্রামের তোতা মিয়ার ছেলে। তার পাসপোর্ট নম্বর বি-এ-০৬৮১৫৩৪।
বেনাপোল শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের ডেপুটি কমিশনার মোহাম্মাদ সাদিক হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বেনাপোল নোম্যান্সল্যান্ড থেকে মোস্তাফিজুর রহমানকে আটক করা হয়। তার দেহ তল্লাশি করে কিছুই পাওয়া যায়নি। পরে তার পেট স্থানীয় একটি ক্লিনিক থেকে এক্স-রে করার পর দুটি সোনার বারের অস্তিত্ব ধরা পড়ে। পরে তাকে চেকপোস্ট কাস্টমসে এনে পায়ুপথ দিয়ে দুটি সোনার বার বের করা হয়। যার ওজন ২০০ গ্রাম। আনুমানিক বাজারদর দশ লাখ টাকা।
তিনি আরো বলেন, ‘আটক সোনা পাচারকারীকে বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। উদ্ধার করা সোনা বেনাপোল কাস্টমস গুদামে জমা করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন