ছাত্রীকে যৌন হয়রানির ভিডিও, আটক ১

আপডেট: 09:34:02 13/10/2018



img

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি : লোহাগড়ায় এক স্কুলছাত্রীর যৌন হয়রানির ভিডিওচিত্র ধারণ করে এক লাখ টাকা দাবি করে তিন বন্ধু। দাবি করা টাকা না পেয়ে ওই তিন বন্ধু ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ মেহেদী হাসান (২২) নামে এক যুবককে আটক করেছে।
আটক যুবক উপজেলার ইতনা গ্রামের কিসলু মোল্যার ছেলে এবং সে লোহাগড়া এম এ হক কারিগরি কলেজের ছাত্র। অভিযুক্ত অন্য দুইজন হলো একই গ্রামের গোলজার মোল্যার ছেলে আনোয়ার মোল্যা (২৪) ও টুকু মোল্যার ছেলে বাঁধন মোল্যা (২৩)।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বখাটে মেহেদী হাসান অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। কিন্তু ওই ছাত্রী তা প্রত্যাখ্যান করায় পিছু নেয় মেহেদী হাসান। একপর্যায়ে গত ৬ অক্টোবর বিকেলে বাড়ির পাশের একটি মুদি দোকান থেকে ফেরার পথে মেহেদী, আনোয়ার ও বাঁধন ওই ছাত্রীকে ধরে নিয়ে পাশের একটি বাঁশবাগানের মধ্যে নিয়ে মেহেদী জড়িয়ে ধরে চুমু খায়, যৌন হয়রানি করে। এ সময় মেহেদীর দুই বন্ধু আনোয়ার মোল্যা ও বাঁধন মোল্যা যৌন হয়রানির দৃশ্যটি মোবাইল ফোনে ভিডিও করে। বিষয়টি ওই ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে তার মা-বাবাকে জানায়। পরে ওই ছাত্রীর মা-বাবা মেহেদীর পরিবারের কাছে অভিযোগ করে বিচার প্রার্থনা করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মেহেদী ও তার দুই বন্ধু যৌন হয়রানির ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেয় এবং সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে অভিযুক্ত মেহেদী হাসানকে গত শুক্রবার রাতে আটক করে।
এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর মা রঞ্জু বেগম বাদী হয়ে গত শনিবার তিনজনকে আসামি করে লোহাগড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন।
লোহাগড়া থানার ওসি প্রবীরকুমার বিশ্বাস বলেন, শনিবার বিকেলে অভিযোগ পেয়েছি। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন