সাতক্ষীরা যুবলীগ আহ্বায়কের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ

আপডেট: 06:13:48 16/01/2018



img

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে জমি দখল, বসতবাড়ি দখল দোকানপাট নদী খাল দখলের অভিযোগ উঠেছে।
মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করেন জেলা সংগঠনের যুগ্মআহ্বায়ক জহিরুল ইসলাম নান্টু।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ‘‘২০১৪ সালের ৩০ নভেম্বর আওয়ামী যুবলীগের সাতক্ষীরা জেলা শাখার ২৯ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটির আহ্বায়ক নির্বাচিত হন আব্দুল মান্নান। মেয়াদ তিন বছর দুই মাস অতিক্রান্ত হলেও জেলা যুবলীগের সম্মেলন না দিয়ে আব্দুল মান্নান গায়ের জোরে এই কমিটি চালিয়ে যাচ্ছেন। আহ্বায়ক নির্বাচিত হওয়ার আগে তিনি বহুবার সংগঠন থেকে বহিষ্কার হয়েছিলেন। আহ্বায়ক নির্বাচিত হওয়ার পর জেলায় তিনি একের পর এক জমি দখল, চাঁদাবাজি, নদী দখলসহ নানা অপকর্মে জড়িত। তিনি বিভিন্ন থানায় যুবলীগের কমিটি ‘বিক্রি’ করে চলেছেন।’’
লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, ‘তার কোন বৈধ ব্যবসা নেই। অথচ তিনি আলিশান বাড়িতে বসবাস করেন। সেটাও একটা প্রতিবন্ধীর জায়গা দখল করে তৈরি করা।’
মেয়াদোত্তীর্ণ জেলা আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত ও ‘দখলবাজ মান্নানের’ হাত থেকে জেলা যুবলীগকে রক্ষা করতে কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয় সংবাদ সম্মেলনে।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মীর মহিতুল আলম, শেখ সফি উদ্দিন শফি, কাজী আক্তার হোসেন, জিয়াউর বিন যাদু, যুবলীগ নেতা সৈয়দ রফিকুল ইসলাম রানা, সৈয়দ হাসান ইমাম শেখ আসাদুজ্জামান লিটু প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপন করা অভিযোগ সম্বন্ধে জানতে চাইলে যুবলীগ আহ্বায়ক আব্দুল মান্নান বলেন, 'উদ্দেশ্যমূলকভাবে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। আমার বিরুদ্ধে ওদের সংবাদ সম্মেলন করার এখতিয়ার নেই। তাছাড়া সংবাদ সম্মেলনে জমি দখল সংক্রান্ত কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ উত্থাপন করা হয়নি।'
অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হবে কেন্দ্রীয়ভাবে। যেকোনো সময় তারিখ ঘোষণা করা হতে পারে।'

আরও পড়ুন