মণিরামপুরে সালমার বিরুদ্ধে তদন্ত হলো

আপডেট: 09:49:36 18/09/2018



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের মণিরামপুর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসের ওয়েলফেয়ার ভিজিটর (এফডব্লিউভি) সালমা খাতুনের বিরুদ্ধে করা লিখিত অভিযোগের তদন্ত হয়েছে।
তদন্ত করতে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে দুই সহকারীকে নিয়ে মণিরামপুর হাসপাতালে আসেন সংস্থাটির যশোরের উপ-পরিচালক মুন্সি মনোয়ার হোসেন। দুপুর ১২টা থেকে দুইটা পর্যন্ত দুই ঘণ্টাব্যাপী চলে এই তদন্তকাজ। এরমধ্যে ফ্যামিলি প্লানিংয়ের মেডিকেল অফিসার ডা. চন্দ্রশেখর কুণ্ডু, অভিযুক্ত সালমা খাতুন, এফডব্লিউভি লায়লা পারভীন, কেশবপুরের এফডব্লিউএ নুরুননাহারসহ অফিসের দশজনের সঙ্গে আলাদা আলাদা কথা বলেন মুন্সি মনোয়ার হোসেন। এসময় সবার বক্তব্য লিপিবদ্ধ করেন তিনি। মণিরামপুর উপজেলা ফ্যামিলি প্লানিং-এর মেডিকেল অফিসার ডা. চন্দ্রশেখর কুণ্ডু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এরআগে গত ২০ আগস্ট অরুণ রায় নামে একব্যক্তি পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের বিভাগীয় পরিচালক বরাবর এফডব্লিউভি সালমার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেন। সেখানে তিনি সালমার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ তোলেন
হাসপাতালের একটি সূত্র জানিয়েছে, তদন্তের চিঠি পেয়ে মঙ্গলবার দুপুরে কেশবপুর থেকে মণিরামপুরে সাক্ষ্য দিতে আসেন নুরুননাহার। তখন নুরুননাহারের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে সালমা তাকে মারতে উদ্যত হন। পরে নুরুননাহার বিষয়টি তদন্ত কর্মকর্তা মুন্সি মনোয়ার হোসেনকে জানিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে সূত্রটি।
জানতে চাইলে তদন্ত কর্মকর্তা মুন্সি মনোয়ার হোসেন বলেন, অভিযোগের তদন্ত হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় পরিচালক শরিফুল ইসলামের বরাবর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে।
তবে তিনি তদন্তে পাওয়া কোনো তথ্য জানাতে রাজি হননি।

আরও পড়ুন