মণিরামপুরে দুর্ঘটনায় গৃহবধূ নিহত, গুরুতর ৪

আপডেট: 07:04:37 18/01/2018



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরের মণিরামপুরে বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় সড়ক দুর্ঘটনায় আকলিমা বেগম (২৮) নামে এক গৃহবধূ মারা গেছেন।
দুর্ঘটনায় একই পরিবারের শিশুসহ চারজন গুরুতর আহত হন। তাদের মধ্যে বাবর আলী (৪৫) নামে একজনের অবস্থা আশংকাজনক। তাকে উন্নত চিকিৎসা দিতে ঢাকায় রেফার করা হয়েছে।
দুর্ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার বিকেল চারটার দিকে যশোর-রাজগঞ্জ সড়কের ভান্ডারির মোড় ‘একতা ইটভাটা’র সামনে।
নিহতের লাশ যশোর জেনারেল হাসপাতালে মর্গে রয়েছে। আহতরা একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।
নিহত আকলিমা বেগম যশোর সদর উপজেলার মাহিদিয়া গ্রামের সুজাউদ্দিনের স্ত্রী। আহতরা হলেন তার মেয়ে শেফা (৩), ভাসুর বাবর আলী, ভাসুরের মেয়ে ইতি (৯) এবং ছেলে সোহান (১০)।
প্রতক্ষদর্শী, পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা সুবর্ণভূমিকে জানান, বাবর আলী তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ইজিবাইকে চেপে মণিরামপুর উপজেলার চাকলা কাঁঠালতলা এলাকায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন। যশোর-রাজগঞ্জ সড়কের ভান্ডারির মোড় একতা ইটভাটার সামনে পেছন থেকে একটি বাস তাদের ইজিবাইককে ধাক্কা দেয়। দুর্ঘটনাস্থলেই আকলিমা মারা যান। গুরুতর আহত হন বাবর আলীসহ শেফা, ইতি এবং সোহান (১০)। পরে স্থানীয় লোকজন হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে আনেন।
হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার কাজল মল্লিক সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘আহদের অবস্থা আশংকাজনক। ২৪ ঘণ্টা পার না হলে কিছু বলা যাবে না।’
হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডের ডাক্তার এসএম তহিদুর রহমান সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘বাবর আলী মাথায় প্রচ- আঘাত পেয়েছেন। বুকের হাড় ভেঙে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছে। তার অবস্থা খুবই আশংকাজনক। তাই উন্নত চিকিৎসা দিতে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রেফার করা হয়েছে।’
খেদাপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের আইসি এসআই আইন উদ্দিন সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘সড়ক দুর্ঘটনার কথা শুনে ঘটনাস্থলে টু-আইসিকে পাঠিয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাসটিকে পায়নি। তবে ইজিবাইকটিকে জব্দ করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন