কোটচাঁদপুরে অপহৃত মাসুদকে অক্ষত উদ্ধারের দাবি

আপডেট: 03:24:50 17/10/2017



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের কোটাচঁদপুর উপজেলার হরিণদিয়া গ্রাম থেকে সাদা পোশাকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া কলেজছাত্র মাকছুদুর রহমান ওরফে মাসুদ রানাকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধারের দাবি জানিয়েছে তার পরিবার।
মঙ্গলবার দুপুরে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নিখোঁজ মাসুদ রানার বৃদ্ধ বাবা মোমিনুর রহমান এই দাবি করেন।
এ সময় নিখোঁজ মাসুদের মা ফিরোজা বেগম, ফুফু শাহানারা খাতুন, দাদি রহিমা খাতুন, চাচি আশুরা বেগম, বোন সুমাইয়া খাতুন, জান্নাতুল ফেরদৌস, ভাবি ফরিদা খাতুন ও চাচাতো ভাই আতিকুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, মাকছুদুর রহমান ওরফে মাসুদ রানাকে গত বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) থেকে পাওয়া যাচ্ছে না। চলতি বছর কোটচাঁদপুর সরকারি কলেজ থেকে তিনি ডিগ্রি (পাশ) পরীক্ষা দিয়েছিলেন।
ঘটনার দিন তার নিজ গ্রাম হরিণদিয়া মসজিদ থেকে আছরের নামাজ আদায় করে মাসুদ ও একই গ্রামের সামছুল আলমের ছেলে সাইফুল ইসলাম বের হন। এ সময় একটি কালো রঙের মাইক্রোবাসে (ঢাকা মেট্রো-ঘ- ১৩-৭৭৬৯) চেপে অজ্ঞাত কয়েক ব্যক্তি সেখানে আসেন। আগন্তুকরা মোবাইল ফোন কোম্পানির টাওয়ারের জন্য জমি দেখানোর কথা বলে তাদের দুইজনকে মাইক্রোতে তুলে নেন। পরে সাইফুলকে ছেড়ে দিলেও মাসুদ রানাকে তারা নিয়ে যান। এরপর থেকে মাসুদের আর খোঁজ মেলেনি।
লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, ‘গত শুক্রবার রাত সাতটার দিকে কোটচাঁদপুর থানায় জিডি করতে গেলে পুলিশ আমাদের লেখা পরিবর্তন করে সাদামাটা একটি জিডি (নম্বর ৪৮২) গ্রহণ করে। তখন থেকে আমাদের আশংকা, প্রশাসনের লোকজনই হয়তো মাকছুদকে নিয়ে গেছে।’
বৃদ্ধ বাবা মোমিনুর রহমান আরো বলেন, ‘আমি ও আমার পরিবার সন্তানকে ফিরে পেতে ব্যাকুল। আমার সন্তান কোনো রাজনৈতিক দলের সাথে যুক্ত না। তার নামে কোনো মামলাও নেই।’
সংবাদ সম্মেলনে তিনি মাসুদ রানাকে জীবিত ফিরে পেতে সরকারের উচ্চমহলের হস্তক্ষেপ দাবি করেন।

আরও পড়ুন