ইংল্যান্ডকে আবার হারিয়ে তৃতীয় বেলজিয়াম

আপডেট: 01:04:31 15/07/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : রাশিয়া বিশ্বকাপে দুই দলের আবার দেখায় আরো দুর্দান্ত খেললো বেলজিয়াম। ইংল্যান্ডকে সহজেই হারিয়ে তৃতীয় স্থান পেয়েছে রবের্তো মার্তিনেসের দল।
শনিবার সেন্ত পিতার্সবুর্গে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচটি ২-০ গোলে জিতেছে বেলজিয়াম। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরা তমা মুনিয়ের গোলে ম্যাচের শুরুতে এগিয়ে যাওয়ার পর শেষ দিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এদেন আজার।
গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে ইংলিশদের ১-০ গোলে হারিয়েছিল বেলজিয়াম।
দারুণ এক পাল্টা আক্রমণে বেলজিয়ামের শুরুটা হয় চমৎকার। গোলরক্ষক থেকে গোলদাতা, পাঁচজনের পা হয়ে বল জড়ায় জালে।
থিবো কর্তোয়ার লম্বা করে নেওয়া শট সতীর্থের পা ঘুরে মাঝমাঠে বল পেয়ে একটু এগিয়ে বাঁ-দিকে ক্রস দেন রোমেলু লুকাকু। আর ডি-বক্সের বাঁ-দিক থেকে মিডফিল্ডার নাসের শাদলির ছয় গজের বক্সের মুখে বাড়ানো ক্রস টোকা দিয়ে গোলটি করেন ডিফেন্ডার তমা মুনিয়ে।
৩ মিনিট ৩৭ সেকেন্ডের মাথায় মুনিয়ের করা গোলটি বিশ্বকাপের ইতিহাসে বেলজিয়ামের দ্রুততম গোল।
এগিয়ে গিয়ে আরো আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে বেলজিয়াম। বল দখলে অবশ্য এগিয়ে ছিল ইংল্যান্ড; তবে বারবার তাদের রক্ষণে ভীতি ছড়াচ্ছিলেন লুকাকু-এদেন আজাররা।
দ্বাদশ মিনিটে ইংলিশ রক্ষণের ভুলে ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে যান কেভিন ডে ব্রুইনে। তবে তার শট এক হাত দিয়ে ঠেকিয়ে ব্যবধান বাড়তে দেননি জর্ডান পিকফোর্ড। খানিক পর ডে ব্রুইনের পাস ডি-বক্সে গোল করার মতো পজিশনে পেয়েও ঠিকমতো নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেননি লুকাকু।
২৫তম মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায় ইংল্যান্ড। কিন্তু রাহিম স্টার্লিয়ের ছোট পাস পেয়ে ১৬ গজ দূর থেকে হ্যারি কেইনের নেওয়া জোরালো শটটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।
বিরতির পর ম্যাচের চিত্রপটে কিছুটা পরিবর্তন আসে। বল দখলে রাখার পাশাপাশি বেশ কয়েকটি গোছানো আক্রমণও করে ইংল্যান্ড।
৬৯তম মিনিটে গোল প্রায় পেয়েই গিয়েছিল তারা। মার্কাস রাশফোর্ডের সঙ্গে বল দেওয়া নেওয়া করার পথে ডিফেন্ডারদের ফাঁকি দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে গোলরক্ষকের উপর দিয়ে শট নেন এরিক ডায়ার। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ছুটে এসে পা বাড়িয়ে ঠেকিয়ে দেন তার ক্লাব সতীর্থ টটেনহ্যাম হটস্পারের টবি আল্ডারভাইরেল্ড।
৮২তম মিনিটে দারুণ এক গোলে জয় নিশ্চিত করেন আজার। ডে ব্রুইনের পাস ধরে গতিতে সঙ্গে লেগে থাকা ফিল জোনসকে পিছনে ফেলে ডি-বক্সে ঢুকে কাছের পোস্ট ঘেঁষে বল জালে পাঠান চেলসি ফরোয়ার্ড। আসরে এটা তার তৃতীয় গোল।
বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের এটাই সেরা সাফল্য। এর আগে ১৯৮৬ আসরে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে তাদেরকে ৪-২ গোলে হারিয়েছিল ফ্রান্স। ম্যাচ শেষে গলায় পদক কিছুটা হলেও সান্ত্বনা দেবে দেশটির সোনালি প্রজন্মের খেলোয়াড়দের।
আর এর আগে একবারই তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ খেলেছে ইংল্যান্ড। ১৯৯০ বিশ্বকাপের সে ম্যাচে ইতালির কাছে ২-১ গোলে হেরেছিল ইংলিশরা। এবারো কেবল কিছু সুখস্মৃতি নিয়ে খালি হাতে ফিরতে হচ্ছে ইংলিশদের।
সূত্র : বিডিনিউজ