কোটচাঁদপুরে সাবেক মেয়রের বাড়িতে ‘ডাকাতের’ হানা

আপডেট: 03:29:16 20/09/2017



img

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : কোটচাঁদপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র সালাউদ্দীন বুলবুল সিডলের বাড়িসহ শহরের দুটি বাড়িতে ‘ডাকাত’রা হানা দিয়েছে। মঙ্গলবার দিনগত গভির রাতে এ ঘটনা ঘটে। তবে আশপাশের লোকজন টের পেয়ে যাওয়ায় ডাকাতরা খুবএকটা সুবিধা করতে পারেনি।
সাবেক মেয়র সালাউদ্দীন বুলবুল জানান, গভির রাতে ডাকাতরা তার বাড়ির দুই তলায় পাইপ বেয়ে উঠে রান্নাঘরের গ্রিল কেটে দুটি ঘরে ঢোকে। ঘরের আলমারি ভেঙে সব কিছু ওলোট-পালট করে। কিন্তু টাকা বা গহনা না পেয়ে তারা চলে যায়।
সিডল বলেন, ‘ওই দুটি ঘরে কেউ না থাকায় টাকা পয়সা বা গয়না রাখা হয় না। বাকি রুমগুলোতে ডাকাতরা ঢোকার চেষ্টা করেও পারেনি। ফলে ডাকাত দল এখান থেকে ব্যর্থ হয়ে প্রতিবেশী ফারুকের বাড়িতে হানা দেয়। কিন্তু টের পেয়ে যাওয়ায় ওই বাড়ির লোকের চিল্লা চিল্লিতে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। তখন আমি ঘটনা বুঝতে পারি।’
ফারুক হোসের জানান, রাতে তিনি বাড়িতে না থাকায় শাশুড়ি ও তার স্ত্রী এক রুমে ঘুমিয়ে ছিলেন। গভির রাতে তার একতলা বাসার রান্নাঘরের গ্রিল খুলে দুই ডাকাত মুখ বাঁধা অবস্থায় ঘরের ভেতর ঢোকে। তারা স্ত্রী লতিফা খাতুন ও শাশুড়িকে ধারালো ছুরি ও পিস্তল ঠেকিয়ে জিম্মি করে আলমারিতে রাখা ১৬ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে নেয়। পরে তারা প্রায় ১৫ মিনিট ধরে সোনার গয়না খোঁজ করে। না পেয়ে ডাকাতরা চলে যায়।
ফারুকের স্ত্রী লতিফা জানান, ডাকাত দুইজন ঘরের মধ্যে থাকলেও ওই সময় বাইরে থেকে অন্যদের ফিসফিসানি শোনা যাচ্ছিল। যে কারণে ডাকাতদলের সদস্য চার থেকে ছয় জন ছিল বলে তার ধারণা।
থানার সেকে- অফিসার ব্রজবল্লভ সাধু সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘ঘটনা শোনার সাথে সাথে ওসি বিপ্লবকুমার সাহা স্যার ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। তবে এ ব্যাপারে এখনো কেউ অভিযোগ করতে থানায় না আসলেও আমরা বিষয়টি নিয়ে তৎপর আছি।’

আরও পড়ুন