‘হেফাজত থেকে পালানো’ শাওনকে খুঁজে বের করার দাবি

আপডেট: 01:42:54 16/04/2017



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে নিখোঁজ তরুণ শাওনকে খুঁজে পেতে পুলিশের সহযোগিতা চেয়েছে তার পরিবার। তাদের বক্তব্য, শাওন যদি কোনো অপরাধে করে থাকে, তাহলে তাকে উদ্ধারের পর সংশোধনের সুযোগ দেওয়া হোক।
রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় প্রেসক্লাব যশোর কনফারেন্স রুমে শাওনের পরিবার এই সংবাদ সম্মেলন করে। এতে তার ফুপু শহরের শংকরপুর গোলপাতা মসজিদের পাশের বাসিন্দা শিউলি মির্জা লিখিত বক্তব্য পড়েন।
গত ৫ এপ্রিল শাওন যশোর পৌরপার্ক থেকে নিখোঁজ হয়। সে সময় মিডিয়ায় খবর বের হয়, সাদা পোশাকের পুলিশ শাওন ও সাইদ ওরফে ভাইপো সাইদ নামে দুই তরুণকে ধরে পেটাতে পেটাতে আলাদা মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়েছে। পুলিশ প্রথমে এই খবর অস্বীকার করলেও পরে জানায়, শাওন পুলিশের কাছ থেকে পালিয়ে গেছে। এ বিষয়ে কোতয়ালী থানায় একটি মামলাও হয়। শহরের দুর্ধর্ষ উঠতি সন্ত্রাসী হিসেবে সাইদ ও শাওনের পরিচিতি রয়েছে।
লিখিত বক্তব্যে ফুফু শিউলি মির্জা দাবি করেন, শাওন নিতান্তই শিশু। নবম শ্রেণিতে পড়াকালে লেখাপড়ায় সে অমনোযোগী হয়ে পড়ে। যাতে সে বিপথে চলে না যায়, সে জন্য পারিবারিকভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে তাকে জজ কোর্ট মার্কেটে একটি পোশাকের দোকান করে দেওয়া হয়। ‘প্রিয়া ফ্যাশান’ নামে ওই দোকানটি সে সুনামের সঙ্গে চালাচ্ছিল।
তিনি বলেন, ‘গত ৫ এপ্রিল প্রতিদিনের মতো বাসা থেকে দোকানে যাওয়ার জন্য শাওন বাড়ি থেকে বের হয়। বেলা সাড়ে ১১টার পর থেকে শাওনের সাথে আমরা কোনো যোগাযোগ করতে পারিনি। শাওনকে খুঁজে পাওয়ার জন্য থানা পুলিশসহ বিভিন্ন জায়গায় যোগাযোগ করে ব্যর্থ হই। পরের দিন স্থানীয় সংবাদপত্রে শাওন পুলিশের হাতে আটক হয়েছে বলে খবর বের হয়। এরপর ফের পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করি। পুলিশ শাওনের আটকের বিষয়টি অস্বীকার করে। পরের দিন শাওন পুলিশের হাত থেকে পালিয়ে গেছে মর্মে কোতয়ালী থানায় একটি মামলা করা হয়।’
লিখিত বক্তব্যে শাওনকে খুঁজে পেতে সহযোগিতা করতে পুলিশের সহযোগিতা চাওয়া হয়। সে যদি কোনো অপরাধ করে থাকে, তাহলে তাকে বিচারের আওতায় এনে শাস্তি প্রদান করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার সুযোগ দেওয়ারও আহ্বান জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শাওনের বাবা মির্জা কবির হোসেন ও ফুপা মিজানুর রহমান।
এদিকে, এলাকাবাসী বলছেন, শাওনের বিরুদ্ধে বহু অপরাধে যুক্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে। শহরের উঠতি বয়সী দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসীদের মধ্যে অগ্রগণ্য হিসেবে সাইদ ও শাওনের পরিচিতি রয়েছে। কয়েক মাস আগে বাপ্পা ওরফে পাপ্পা নামে এক তরুণকে ডেকে নিয়ে শত শত মানুষের সামনে খুন করার অভিযোগও রয়েছে। অল্প কিছুদিন আগে শঙ্করপুর মহিলা মাদরাসার সামনে শাকিল নামে এক কলেজছাত্রকে মোটরসাইকেলে চলন্ত অবস্থায় গুলি করে জখম করা হয়। এই ঘটনায়ও অভিযোগের তির ভাইপো সাইদের নেতৃত্বাধীন সন্ত্রাসী বাহিনীর দিকে।

আরও পড়ুন