সাতক্ষীরায় শীতজনিত রোগের প্রকোপ, হাসপাতালে ২৪৯

আপডেট: 07:32:36 12/01/2018



img
img

আব্দুস সামাদ, সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরায় প্রচণ্ড শীতে শিশুদের শ্বাসকষ্ট, ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া রোগের প্রকোপ বেড়ছে। এসব রোগে গত কয়েক দিনে মৃত্যু হয়েছে অন্তত সাতজনের। এছাড়া ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে আরে ২৪৯টি শিশু।
সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গত দশদিনে সদর হাসপাতালে নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্টসহ ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয় ১৪১টি শিশু। এছাড়া ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছে ৭৩ জন। আর সাতক্ষীরা শিশু হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে ৩৫ শিশু।
সাতক্ষীরার আশাশুনি সদরের ইসমাইল হোসেন জানান, তার ছেলের বয়স দুইদিন। প্রচণ্ড শীতে সে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে। তাই আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে জরুরিভিত্তিতে তাকে সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এখানে তিন দিন ধরে তার চিকিৎসা চলছে। এখন অবস্থা মোটামুটি ভালো।
সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার ইশারত আলী জানান, তার ছেলের বয়স দেড় বছর। গত ৭ জানুয়ারি সে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়। তাই হাসপাতালে ভর্তি করা ছাড়া কোনো পথ ছিল না।
সদর হাসপাতালের স্টাফ নার্স রাবেয়া খাতুন বলেন, ‘শৈত্যপ্রবাহের সাথে শীত বেড়ে যাওয়ায় শিশুদের ঠান্ডাজনিত রোগ বেড়েছে। গত দশদিনে আড়াই শতাধিক শিশু সদর হাসপাতালে শ্বাসকষ্ট, ডায়রিয়া, নিউমোনিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছে। তাদের আন্তরিকতার সাথে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।’
সাতক্ষীরা শিশু হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘প্রচণ্ড শীত পড়ায় অভিভাবকদের অসচেতনতার কারণে শিশুরা কোল্ড ডায়রিয়া, শ্বাসকষ্ট ও নিউমোনিয়ায় বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। গত দশদিনে এই হার বেড়েছে। সচেতন না হলে অর্থাৎ শিশুদের ঠান্ডা থেকে দূরে রাখতে না পারলে তা ভোগান্তির কারণ হতে পারে।’
সাতক্ষীরা আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জুলফিকার আলী রিপন জানান, সাতক্ষীরায় জানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে গড় তাপমাত্রা ছিল ১০ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ৮ জানুয়ারি এখানে সর্বনিম্ন ৭.৫ ডিগ্রি, ৯ জানুয়ারি ৫.৬ ডিগ্রি ও ১০ জানুয়ারি সর্বনিম্ন ৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামে তাপমাত্রা।

আরও পড়ুন