মহেশপুরে শিক্ষকদের ‘বই-বাণিজ্য’

আপডেট: 07:29:03 12/01/2019



img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : নতুন বছরের প্রথম দিনেই ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার সব স্কুলে ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে নতুন ক্লাসের বিনামূল্যের বই তুলে দেওয়া হয়েছে। এরপর স্কুলের শিক্ষকরা গাইড বই কোম্পানি ও বইয়ের দোকানিদের কাছ থেকে মোটা টাকার বিনিময়ে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে নিষিদ্ধ গাইড বই তুলে দিচ্ছেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েক শিক্ষক জানান, মহেশপুর উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণি থেকে শুরু করে দশম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় সব ক্লাসের ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুলের শিক্ষকরা ইতিমধ্যে গাইড বইয়ের স্লিপ ধরিয়ে দিয়েছেন। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির নেতাদের ইশারায় অনেক স্কুলের শিক্ষকরা ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে গাইড বই তুলেও দিয়েছেন।
মহেশপুরে রেকসোনা বুক ডিপো, মহেশপুর বইঘর, আলাউদ্দিন লাইব্রেরিসহ কয়েকটি দোকানের মালিক গোডাউন ভাড়া নিয়ে বিভিন্ন কোম্পনির নিম্নমানের গাইড বই গোডাউনজাত করে রেখেছেন। এখন উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে মোটা টাকার বিনিময়ে চুক্তিবদ্ধ হয়ে গাইড বইগুলো গোডাউন থেকে স্কুলগুলোতে সরবরাহ করা হচ্ছে বলে জানান শিক্ষক সমিতির এক নেতা। রেকসোনা বুক ডিপোর মালিক এর আগে অনেক বই কোম্পানির বই নকল করে ধরা পড়ে ক্ষমা প্রার্থনাও করেছেন। কিন্তু তারপরও রেকসোনা বুক ডিপোর মালিক আলমগীর হোসেনের গাইড বইয়ের ব্যবসা থেমে নেই।
উপজেলা ম্যাধমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ওয়ায়েজ উদ্দিন বলেন, ‘গাইড বিক্রিতে শিক্ষক সমিতির কোনো নেতা জড়িত নেই। একেক স্কুল বসে সিদ্ধান্ত নিচ্ছে তাদের প্রতিষ্ঠানে কোন গাইড পড়ানো হবে। আমি যতটুকু জানতে পেরেছি, সব স্কুলে একই গাইড ব্যবহার হচ্ছে না। তারপরও গাইড সরকারনিষিদ্ধ। এই অবৈধ কারবার চুক্তির বিনিময়ে হচ্ছে কি না, তা আমার জানা নেই।’
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘আমাকে এখনো গাইড বইয়ের ব্যাপারে কেউ জানায়নি। তারপরও আমি বিভিন্ন বিদ্যালয়ে খোঁজ-খবর নিচ্ছি। প্রমাণ পেলেই ব্যবস্থা নেব।’
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমজাদ হোসেন বলেন, ‘আমি ঢাকায় আছি। অফিসে এসেই সরকারনিষিদ্ধ বইয়ের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেব। আমি কাউকেই এবিষয়ে ছাড় দেবো না।’
উপজেলা নির্বাহী কর্তকর্মা শাশ্বতী শীল বলেন, ‘আমি এখানে থাকতে আমার এলাকায় সরকার নিষিদ্ধ কোনো গাইড বই চলবে না। আমি তদন্ত করে দেখে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।’

আরও পড়ুন